বঙ্গবন্ধু সাহিত্য পরিষদের সভায় মফিজুর রহমান স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে বাঙালি জাতি জাগরণের স্বাধীনতা পূর্ণতা রূপ পায়

বঙ্গবন্ধু সাহিত্য পরিষদ চট্টগ্রাম জেলার উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে গত ১০ জানুয়ারি, বুধবার সন্ধ্যা ৬ ঘটিকায় নগরীর আন্দরকিল্লাস্থ মোজাহের ভবনের হল রুমে আলোচনা সভা ও কবিতা পাঠ সংগঠনের সহ-সভাপতি এড. টিপু শীল জয় দেবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান। প্রধান বক্তা ছিলেন, চসিকের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী। বিশেষ অতিথি ছিলেন চ্যানেল আই চট্টগ্রামের ব্যুরো প্রধান চৌধুরী ফরিদ। মুখ্য আলোচক ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও কলামিস্ট অধ্যাপক ড. মাসুম চৌধুরী। সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বোরহান উদ্দিন গিফারীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন লিটন। বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা স্মৃতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুর রহিম, নগর যুবলীগ নেতা সুমন দেব নাথ, শিক্ষাবিদ মাস্টার অজিত কুমার শীল, আওয়ামীলীগ নেতা বাবর আলী ইনু, শবনম ফেরদৌসী, ছাত্রনেতা খুরশীদ আলম খোকন, ছাত্রলীগ নেতা আরিফুল ইসলাম, মিজানুর রহমান, শওকতুল ইসলাম, রিহান পারভেজ চৌধুরী, সালেহী নুর জামান চৌধুরী তানভীর, নারী নেত্রী সৈয়দা শাহানারা বেগম, সৌমিয়া সালাম, রোজি চৌধুরী, অধ্যাপক সুমন দত্ত, অধ্যক্ষ রতন দাশ, স.ম জিয়াউর রহমান, কবি আসিফ ইকবাল, নোমান উল্লাহ বাহার, মেজবাহ উদ্দিন, কাইমুর রশিদ বাবু, সাইফুল ইসলাম মুরাদ, মাশরুর আহমেদ শোভন, ওমর ফারুক সুমন, নাজমুল হুদা মারুপ, সাংবাদিক কামাল হোসেন, গিয়াস উদ্দিন রায়হান আজবী, নুরুল হুদা চৌধুরী, শেখ মাহবুবুল আলম, মোঃ নাঈম উদ্দীন, হানিফ হোসেন, মোঃ সাকিব, কামরুল আলম, এম আই হোসেন সাহিদ প্রমুখ।
সভায় প্রধান অতিথি মফিজুর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ বাঙালি এক ও অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ গভীর রাতে পাকিস্তানি হায়ানারা বঙ্গবন্ধু মুজিবকে গ্রেপ্তার করে। বঙ্গবন্ধুর পূর্ব নির্দেশ অনুসারে বাঙালি জাতি দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ করে বাংলাদেশ স্বাধীন করে। বঙ্গবন্ধুর দীর্ঘ ২৩ বছরের রাজনৈতিক সংগ্রাম এবং বীর বাঙালির ৯ মাসের যুদ্ধের পর ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্বাধীন হলেও সেদিন জাতির মহানায়কের শুন্যতায় হাসতে পারেনি যুদ্ধে বিজয়ী বাঙালি জাতি। ১০ জানুয়ারি জাতির মহানায়ক মঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীন বাংলাদেশের মাটিতে প্রত্যাবর্তন করার পর বাংলাদেশ বিজয়ের পূর্ণতা লাভ করে। এ বিজয় আমাদের ধরে রাখতে হবে। বক্তারা আরও বলেন, স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে বাঙালি জাতি জাগরণের স্বাধীনতা পূর্ণতা রূপ পায়। বঙ্গবন্ধুর রেখে যাওয়া সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

x

Check Also

পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগ স্থগিত যে কারণে

অতিমাত্রার বাণিজ্যের কারণেই স্থগিত করা হয়েছে পুলিশের কনস্টেবল পদে লোক নিয়োগ। একের পর এক বাণিজ্যের ...