চট্টগ্রাম দক্ষিণজেলা প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের সভায় বক্তারা মানুষের কল্যাণ সুনিশ্চিত করার মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হবে

চট্টগ্রাম দক্ষিণজেলা প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৪৭তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দুঃস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠান গত ১১ জানুয়ারী সন্ধা ৭টায় সংগঠনের সভাপতি মোর্শেদ আলম চৌধুরী সভাপতিত্বে নগরীর প্রিয়া কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান। প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবালের পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত চট্টগ্রাম চেম্বারের সুযোগ্য পরিচালক অহিদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন, মহানগর যুবলীগনেতা সুমন দেবনাথ, মোজাফফরাবাদ স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি লেখক বিপ্লব সেন, বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চারনেতা স্মৃতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবদুর রহিম, দক্ষিণজেলা আওয়ামীলীগনেতা এস.এম. ছালেহ, সেলিম উল্লাহ,বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সহ সম্পাদক ছাত্রনেতা ইয়াসির আরাফাত, নারীনেত্রী সৈয়দা শাহানা আরা বেগম, চট্টগ্রাম আইনকলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এড. টিপুশীল জয়দেব, অধ্যক্ষ রতন দাশগুপ্ত, সংগঠনের সহ সভাপতি ডাঃ মোঃ জামাল উদ্দীন, দক্ষিণজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগনেতা সালাউদ্দীন লিটন, নগর ছাত্রলীগের সদস্য বোরহান উদ্দীন গিফারী, চট্টগ্রাম আইনকলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাকসুদুর রহমান মাসুদ, যুগ্ন সম্পাদক জাফর আলম রবিন, দক্ষিণজেলা ছাত্রলীগনেতা সৈকত চৌধুরী, রাশেদ মাহমুদ পিয়াস, রতন দাশ প্রমুখ। সভার শুরুতে কোরআন তেলওয়াত করেন মোঃ এহসান।
সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষ সেদিন সত্যিকার বিজয় আর প্রিয়নেতা কাছে পেয়েছিলেন। তিনি আরো বলেন বঙ্গবন্ধু সেদিন একজন অসাধারণ নেতা হিসেবে বাঙালীর কাছে পাকিস্তানে অন্ধকার কারা থেকে মুক্তি পেয়ে বাঙালীকে স্বাধীনতার পরিপুর্ণতার স্বাদ এনে দিয়ছিলেন। একজন বিচক্ষণ ও দুরদর্শী নেতা হিসেবে সেদিন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ভ্রাতৃপ্রতীম বন্ধুরাষ্ট্র ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীকে বলেছিলেন কখন ভারতীয় সৈন্য বাংলাদেশ ত্যাগ করবে। তিনি আরো একজন আপাদমস্তক ও প্রতিভাবান বিশ্ববরেণ্যনেতা বাঙালীকে মনেপ্রাণে মৃত্যুর আগদিন পর্যন্ত ভালোবেসেছিলেন। সভার প্রধান আলোচক বলেন বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে বাঙালীর মুক্তির প্রকৃত বিজয়ের স্বাদ নিতে পেরেছিলেন। তিনি বলেন আজকের জাতির জনকের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আমাদের শপথ হোক কল্যাণের আর দেশপ্রেমিক নাগরিক হওয়ার।
বিশেষ অতিথি চেম্বারের পরিচালক অহিদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন বলেন জাতির জনকের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে শীতার্থ মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ একটি সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত। আলোচনা সভার পাশাপাশি আমাদেরকে এভাবে সামাজিক কল্যাণে অংশগ্রহণ করে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণে ভুমিকা রাখতে। সভা শেষে কদম মোবারক এতিমখানার ছাত্রদের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়।

x

Check Also

চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন হাসপাতালে সেবা পক্ষ শুরু

সুলভ ও সাশ্রয়ী মূল্যে আর্ন্তজাতিক মানের স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দূরগৌঁড়ায় পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যকে সামনে রেখে ...