পতেঙ্গা সৈকতে অভিনব প্রতারণার শিকার হচ্ছেন পর্যটকরা…! ”টুরিস্ট পুলিশ জরুরী “ দাবি পর্যটকদের ..............................................

ভ্রাম্যমান সংবাদ দাতা:১৪নভেম্বর

নগরীর পতেঙ্গা সৈকতে চলছে একটি সংঘবদ্ধ চক্রের অভিনব প্রতারণার শিকার হচ্ছেন পর্যটকরা…!প্রতারক চক্রের সদস্যরা পর্যটকদের ধাক্কা দিয়ে হাতে থাকা মোবাইল সেট নিচে ফেলে দিয়ে শুরু করে নতুন মাত্রার প্রতারণা।আর এই ফাঁদে পড়া পর্যটকার হতবিম্ব হয়ে নিজের দামী মোবাইল সেটটি প্রতারকদের দেন মেরামত করতে।

সেই সুযোগে প্রতারক মোবাইল সেট পাল্টিয়ে বা নষ্ট বলে জোর করে নিতে চান। না দিলে সংঘবদ্ধ চক্রের লোকজন এসে প্রতিবাদ কারীকে লাঞ্চিত সহ মারধর করার অভিযোগ করেন বহাদ্দারহাট থেকে বেড়াতে আসা পর্যটক দীপ।

অপর একটি পর্যটক টিম পরিবার নিয়ে বেড়াতে এসে এ ধরনে প্রতারণার শিকার হয়েছেন বলে তাবাসুসম নীতু নামের এক নারী। তিনি আরও জানান,একই দিন মাত্র ৩০মিনিটের ব্যবধানে ৩টি ঘটনা দেখে খুবই বিস্মিত হয়ে কয়েকজন দোকানী কে ঘটনাটি জানালে তারা নিরব ভুমিকা পালন করেন।তার এই অবস্থা দেখেই বুঝা যাচ্ছে এই সংগবদ্ধ চক্রটি অত্যন্ত শক্তিশালী । গোপন সূত্রে জানা গেছে যে,এই চক্রের সদস্যরা বিভিন্ন রাজনৈকি দলের এবং নেতাদের আশ্রয় পুষ্ট।

এই ব্যাপারে পতেঙ্গা থানা পুলিশের সাথে যোযোগ করা হলে তারা জানাই, আমরা লিখত অভিযোগ পেলে জড়িত কাউ কে ছাড় দেব না। পর্যটকরা যাতে নির্বিঘ্নে চলাফেরা করতে পারে এই ব্যাপারে প্রশাসন আরো তৎপর হবে এমনটাই প্রত্যাশা সংশ্লিষ্টদের।

এছাড়া আরো একাধিক পর্যটকদের দাবি এই সৈকক এলাকায় টুরিস্ট পুলিশ এবং কমিউনিটি পুলিশ সদস্য সহ প্রকৃত আইনের সেবক সাদা পোষাকে মোতায়ন করে জন নিরাপত্তা নিশ্চিত এবং পতেঙ্গা সমূদ্র সৈকত এলাকায় অনৈতিক-অসামাজিক ওপ্রকাশ্যে মাদক বিকিনি , ইভটিজিং রোধ করা জরুরী। ( সংবাদ সূত্রঃ দৈনিক পূর্বকোণ,১৪/১১/২০১৭ইং(২য় পৃষ্টা)চট্টগ্রাম)j

x

Check Also

ঈদে মিলাদুন্নবী (দঃ)হচ্ছে মুসলিম মিল্লাতের ঐক্যের প্রতীক,সূফি মিজান

হোসেন বাবলা:১৯নভেম্বর বন্দর নগরীতে নগর গাউছিয়া কমিটির উদ্যোগে পবিত্র মাহে রবিউল আউয়াল উপলক্ষে স্বাগত জানিয়ে ...