বান্দরবান সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রীদের স্মরনিকা প্রকাশে অধ্যক্ষের অসযোগিতা

বান্দরবান প্রতিনিধি :
বান্দরবান সরকারি মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা স্মরনিকা প্রকাশের অনুমতি চাইলে অধ্যক্ষ বার বার শিক্ষার্থীদের অনুমতি না দেয়ার ভিন্ন ভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে এড়িয়ে যাচ্ছে বলে দাবি করেন শিক্ষার্থীরা। শনিবার সকালে বান্দরবান সরকারি মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা স্মরনিকা প্রকাশের অনুমতি না দেয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন করতে চাইলে অধ্যক্ষ প্রদীপ বড়–য়াসহ কয়েক জন শিক্ষকদের বাধা প্রদান করার মাধ্যমে মানববন্ধন বন্ধ করে দেন বলে অভিযোগ করে শিক্ষার্থীরা।
এই বিষয়ে বান্দরবান সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী তামান্না আক্তার বলেন প্রত্যেক মানুষ বা ব্যক্তি চাই তাদের মেধা শক্তিকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন কিছু তৈরী করতে। সভ্যতার সাথে সাথে আধুনিক যুগে প্রতিযোগীতার মধ্য দিয়ে সবাই নিজেকে কোনকোন ভাবে উপস্থাপন করতে চাই। যেমন আমরা চাই একটি স্মরনিকা বা ম্যাগাজিন প্রকাশ করে আমাদের সকলের স্মৃতিকে একটি মেধার ভূখন্ডে আবদ্ধ করে রাখতে। যেখানে থাকবে আমাদের সকলের রক্তের গ্রুপ,ফোন নম্বার,ঠিকানা ইত্যাদি।
মানবিক বিভাগের একজন শিক্ষার্থী ম্যাচিং নু বলেন ,আমরা এই কলেজে নানা প্রকার সমস্যার মধ্যে দিয়ে পড়া লেখা করছি। আমাদের নেই কোন বিনোদন,নেই কোন উৎসব উর্দযাপন করার অনুমতি। যেমন আমরা যখন আমাদের কলেজে র্ভতি হয়েছি তখন নবীন বরণ এটা ওটা বলেন বিভিন্ন রকম টাকা আদায় করেছে কলেজ। কিন্তু আমাদের কলেজে এই বছর কোন নবীন বরণ হয়নি তাহলে টাকা গুলো গেল কই?
ব্যবসা শিক্ষা শাখার একজন শিক্ষার্থী মাহামুদা আক্তার বলেন ,শিক্ষকরা শুধু আমাদের উপর দোষ ছাপিয়ে দিচ্ছে এই বছরের এইচএসসি ফলাফল নিয়ে ,কিšু‘ কলেজে যে শিক্ষক নেই,কøাস হয়না,ফ্রি টেস্ট হয়না এসব আমরা কাকে বলব ।আমরা স্মরনিকা প্রকাশ করতে চাইলে নানা প্রকার অজুহাত অধ্যক্ষ স্যারের।
এদিকে এই বিষয়ে বান্দরবান সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রদীপ বড়–য়া জানান ,এবার বান্দরবান সরকারি মহিলা কলেজ এইচ এসসি পরীক্ষায় সবচেয়ে বেশি অকৃতকার্য হয়েছে। সুতারাং আমি চাই না শিক্ষার্থীরা স্মরনিকা প্রকাশ করা নিয়ে তাদের মূল্যবান সময় নষ্ট করে পড়ালেখার ক্ষতি করুক । যার কারনে আমি স্মরনিকা প্রকাশে জন্য অনুমতি প্রদান করছিনা।তিনি আরো বলেন শিক্ষক সংকট নিয়ে আমি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছি । তিনি আরো বলেন আমি স্মরনিকা প্রকাশ করা নিয়ে আমাদের একাডেমী কাউন্সিলের সাথে বসে সিদ্ধান্ত দিব। নবীনবরণ নিয়ে জানাতে চাইলে তিনি বলেন ,আমাদের কলেজটা আবাসিক হওয়ার কারনে এখনো নবীন বরণ করা হয়নি। তাছাড়া এখনো একাদশ শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রম সর্ম্পূণ সমাপ্ত হয়নি। ভর্তি কার্যক্রম সেপ্টেম্বর মাসে ২৩ তারিখ পর্যন্ত চলমান আছে । ভর্তি কর্যক্রম শেষ হলে আমরা নবীন বরণ অনুষ্ঠান করবো।

x

Check Also

সিইউজে সভাপতিকে হত্যা চেষ্টায়: প্রতিবাদ ও বিক্ষুভ সমাবেশ মানববন্ধন

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি ও পেশাজীবী নেতা রিয়াজ হায়দার চৌধুরীকে হত্যার প্রচেষ্টার ঘটনায় গ্রেফতার ...