এমপি কমলের শ্বশুর শিল্পপতি সৈয়দ মোহাম্মদ শফির জানাযায় জনসমুদ্রে পরিনত

খালেদ হোসেন টাপু, রামু
রামু কক্সবাজারের সাংসদ আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমলের শ্বশুর চট্টগ্রামের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজসেবক, দানবীর, সফি মোটরস লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দ মোহাম্মদ শফির জানাযা শনিবার (১৬ জুলাই) জোহরের নামাযের পর চট্টগ্রাম দামপাড়াস্থ জামিয়তুল ফালাহ মসজিদ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাযায় বিপুল সংখ্যক আলেম ওলামাসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ রাজনৈতিক, সামাজিক, পেশাজীবিরা অংশগ্রহণ করেন। এছাড়াও মরহুমের প্রথম জানাযা শনিবার সকাল ১১টায় ঈদগাস্থ সফি মোটরস প্রাঙ্গণে, তৃতীয় দফা জানাযা মরহুমের গ্রামের বাড়ি রাউজানের কদলপুরে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।
জানাযায় উপস্থিত ছিলেন রাউজানের এমপি ফজল করিম চৌধুরী, রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, বনফুল ও কিষোয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ এম এম মোতালেব, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান , চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও জাতীয় পার্টি নেতা মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, মরহুমের জামাতা কক্সবাজার-৩ আসনের সাংসদ আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল, রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি জাফর আলম চৌধুরী, জেলা পরিষদ সদস্য নুরুল হক কোম্পানী, চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার, ফতেখাঁরকুল ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম, গর্জনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, কচ্ছপিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইসমাইল মোঃ নোমান, জোয়ারিয়ানালা ইউপি চেয়ারম্যান কামাল শামশুদ্দিন আহমদ প্রিন্স, রশিদনগর ইউপি চেয়ারম্যান এমডি শাহ আলম, দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুছ ভুট্টো, রাজারকুল ইউপি চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান, কচ্ছপিয়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল আমিন কোম্পানী, আওয়ামীলীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ আহমদ, জহির উদ্দিন কাজল, নুরুল হক, মাসুদুর রহমান মাসুদ, সাহাব উদ্দিন, রামু উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি এডভোকেট মোজাফফর আহমদ হেলালী, যুবলীগ নেতা নবীউল হক আরকান, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের আহবায়ক আনছারুল হক ভুট্টো, সদস্য সচিব সাংবাদিক খালেদ হোসেন টাপু, যুবলীগ নেতা ওসমান গণি, এমপি কমলের পিএস মিজানুর রহমান, ব্যক্তিগত সহকারী আবু বকর ছিদ্দিক, তাঁতলীগের সভাপতি নুরুল আলম জিকু, ফতেখাঁরকুল স্বেচ্ছাবেসকলীগ সভাপতি আজিজুল হক আজিজ, ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন ও নোমান, সৈনিকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ ফরহাদ, ব্যবসায়ী ফরিদ চৌধুরী, মোতাহার হোসেন সিকদার, আনোয়ার হোসেন বাবলা, সৈয়দুল হক, ইছহাক চৌধুরী পাখি, রাশেদ আলী খান, মোহাম্মদ শফি, মোহাম্মদ ইউনুছ, আরিফ খান জয়, ইমরান, নাহিদ, মোঃ নাছির, জুয়েল ও মনজুর।
এদিকে শিল্পপতি সৈয়দ মোহাম্মদ শফিকে দেখতে যান জেলা আওয়ামীলীগের মহিলা সম্পাদক মুসরাত জাহান মুন্নী, জেলা যুবলীগ নেতা পলক বড়–য়া আপ্পু, রামু উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়–য়া, যুবলীগ নেতা উত্তম মহাজন।
শুক্রবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটে নগরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে, ৫ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে যান। কক্সবাজারের রামু আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল মরহুমের জামাতা।

উল্লেখ্য, সৈয়দ মোহম্মদ শফি ১৯৩৪ সালে রাউজানের কদলপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি দেশের একজন শীর্ষ ব্যবসায়ী ছিলেন। নিজের একান্ত প্রচেষ্টায় ১৯৬৪ সালে সফি মোটরস নামে যে প্রতিষ্ঠানটি তিনি গড়ে তুলেছিলেন মাত্র ১০ বছরের মাথায় সে প্রতিষ্ঠানটি হয়ে যায় দেশের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান। তিনি বিভিন্ন সামাজিক, শিক্ষা ও সেবামূলক প্রতিষ্ঠানের সাথে আমৃত্যু জড়িত ছিলেন। তিনি বাংলাদেশ ইনল্যান্ড কন্টেইনার ডিপোস এসোসিয়েশনের সিনিয়র সহসভাপতি, রোগী কল্যাণ সমিতি, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহসভাপতি, আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম, চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক, অটিস্টিক চিলড্রেনস ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি, মা ও শিশু জেনারেল হাসপাতাল, কেন্দ্রীয় ঈদ জামাত কমিটিসহ বিভিন্ন সংগঠনের সাথে জড়িত।

x

Check Also

কুুতুপালং রোহিঙ্গা মুসলিম ক‘্যাম্পে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ বিতরণ কালে-এম এ মান্নান

মিয়ানমারে সর্বনিকৃষ্টতম এ জঘন্যতম বর্বরতা ও নির্মমতার প্রতিবাদ করা বিশ্বের শান্তিকামী মানুষের নৈতিক দায়িত্ব ও ...