ঝিনাইদহে ঝাল ক্ষেত থেকে অজ্ঞাত যুবতীর লাশ উদ্ধার

ঝিনাইদহ সংবাদদাতাঃ
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার কাষ্টভাঙ্গা গ্রামের মাঠের একটি ঝাল ক্ষেত থেকে এক যুবতীর (১৮) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার বিকাল ৫ টার দিকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ ধারণা করছে, গলায় ওড়না পেচিয়ে তাকে হত্যা করে এখানে ফেলে রেখে গেছে দুর্বৃত্তরা। কালীগঞ্জ থানার সেকেন্ড অফিসার নিরব হোসেন জানান, শুক্রবার বিকেলে উপজেলার কাষ্টভাঙ্গা ইউনিয়নের কাষ্টভাঙ্গা গ্রামের মাঠের একটি ঝাল ক্ষেতে অজ্ঞাত যুবতীর লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে সেখান থেকে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য থানায় আনে। বারবাজার ফাঁড়ির এসআই বিকাশ জানান, নিহত তরুণীর গলায় ওড়না পেচানো ছিল। ধারণা করা হচ্ছে তাকে অন্য কোথাও থেকে ধরে এনে হত্যা করা হয়েছে। তবে ধর্ষণের পর হত্যা নাকি শ্বাসরোধ করে হত্যা তা ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।

সরকারি বালক ও বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীর জন্য টিফিনে নাস্তায় পচা-বাসী খাবার

ঝিনাইদহ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও বালিকা বিদ্যালয়ের এক হাজারেরও বেশী ছাত্র-ছাত্রীর জন্য টিফিন পিরিওডের নাস্তায় পচা-বাসী খাবার সরবরাহ করার অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঝিনাইদহ শহরের পোস্ট অফিস মোড়ের মায়ের আশীর্বাদ মিষ্টান্ন ভান্ডার এবং নতুন হাটখোলার আনন্দ হোটেলে বৃহস্পতিবার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুপ্রভাত চাকমা ও জাফর সাদিক চৌধুরী এর নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযান পরিচালনার সময় দু’টি প্রতিষ্ঠানে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য সংরক্ষণ, তৈরি ও পচা-বাসী খাবার বিক্রিসহ অননুমোদিত পণ্য বিক্রির প্রমাণ পায় আদালত। এ সময় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ অনুযায়ী মায়ের আশীর্বাদ মিষ্টান্ন ভান্ডারকে ২ হাজার এবং আনন্দ হোটেলকে ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। রান্নাঘর ও খাবারের পরিবেশ উন্নয়নের জন্য আনন্দ হোটেলকে ৩০ দিন সময় দেয়া হয়। পরবর্তীতে উপস্থিত জনসাধারণকে এ বিষয়ে সচেতন করার পর জনসম্মুখে পচা-বাসী ও মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার ধ্বংস করা হয়।

মহেশপুরেএক স্কুল ছাত্রী অপহরন

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার ফতেপুর গ্রামে এক স্কুল ছাত্রী অপহরণের শিকার হয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে প্রকাশ, বুধবার সকালে উপজেলার ফতেপুর গ্রামের ইন্তাজ আলীর মেয়ে ফতেপুর বালিকা বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী শিখা খাতুন(১৪) অপহরণের শিকার হয়েছে। জানা গেছে, মেয়েটি সকাল ৬টার দিকে প্রাইভেট পড়ার জন্য বাড়ী থেকে বের হয়ে ফতেপুর রাস্তায় আসলে সেখান থেকে একটি সাদা মাইক্রোবাসে করে অপহরণকারী তাকে তুলে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে মেয়ের পিতা মহেশপুর থানায় একটি অপহরন মামলা দায়ের করেছে। মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আহম্মেদ কবির জানান, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

x

Check Also

চট্টগ্রামের নারী উদ্যোক্তারা অনেক বেশী সংগঠিত,ইপিবি মহা-পরিচালক

প্রধান প্রতিবেদক:চিটাগংডেইলি ডটকম, চট্টগ্রামের নারী উদ্যোক্তারা অনেক বেশী সংগঠিত। সহযোগিতা পেলে তারা রপ্তানিখাতে অবদান রাখতে ...