ঈদে যাত্রী পরিবহনে ৭৫ কোচ অতিরিক্ত সরবরাহ

এবারের কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ট্রেনে নিরাপদে যাত্রী পরিবহন করতে অতিরিক্ত কোচ সংযোজনসহ ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়ে ঈদের অগ্রীম টিকেট বিক্রয় শুরু করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। গত ১৮ আগষ্ট থেকে এ টিকেট বিক্রয় শুরু হয়ে সোমবার ৪র্থ দিনের টিকেট বিক্রয় করা হচ্ছে।
এতে যাত্রীদের ভীড়ও দেখা গেছে লক্ষণীয়। লাইনে দাঁড়িয়ে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পর টিকেট হাতে পাচ্ছেন যাত্রীরা।
এবার যাত্রীদের সুবিধা বিবেচনায় শোলাকিয়াসহ ৫টি স্পেশাল ট্রেনসহ ৭৫টি কোচ মেরামত শেষে অতিরিক্ত সংযোজন করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ৫২টি কোচ ওয়ার্কশপ থেকে মেরামত শেষে সরবরাহ করা হয়েছে। বাকি কোচগুলো ৩০ আগষ্টের মধ্যে মেরামত শেষে সরবরাহ করা হবে। তাছাড়া ট্রেন পরিচালনার সুবিধায় কর্মকর্তা-কর্মচারিদের ঈদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে বলে জানান পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) প্রকৌশলী মো. আবদুল হাই।

তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, কোরবানির ঈদে নিরাপদে ট্রেনে যাত্রী পরিবহনের পাশাপাশি রেল প্রশাসনের বিশেষ নজরদারিও রয়েছে সার্বক্ষণিক। এতে করা হয়েছে বিভিন্ন মনিটরিং সেলও। অতিরিক্ত কোচ সংযোজনের মাধ্যমে প্রায় ২০ হাজার অতিরিক্ত যাত্রী বিভিন্ন ট্রেনে পরিবহন করবে প্রতিদিন। তাছাড়া এবার ঈদে নিরাপদে যাত্রী পরিবহনের জন্য নতুন ট্রেন পরিচালনা, নাশকতা প্রতিরোধ, টিকিট কালোবাজারী প্রতিরোধ, লোকোমোটিভ সরবরাহ, ছুটি বাতিলসহ অন্যান্য পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। তবে কোন ধরণের অনিয়ম না ঘটে সে জন্য রেলপথ মন্ত্রী ও ডিজিসহ উর্ধতনদের নির্দেশনা রয়েছে। একই কথা বললেন প্রধান বাণিজ্য কর্মকর্তা (সিসিএম) সরদার শাহাদাত আলীও।

কোচ সরবরাহ নিয়ে পাহাড়তলী ওয়ার্কশপ–এর তত্ত্বাবধায়ক মো. মহিউদ্দিন বলেন, এবারের ঈদুল আজহায় অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের লক্ষ্যে পাহাড়তলী কারখানায় ৭৫টি কোচ মেরামত করছি। এ পর্যন্ত ৫২টি কোচ মেরামত শেষে কারখানা থেকে বের করেছি। ৩০ আগষ্টের মধ্যে বাকিগুলো বের করতে পারবো। তবে ঈদ যাত্রার আগেই অতিরিক্ত (মেরামতকৃত) কোচগুলো যুক্ত হবে বলে তিনি জানান।

যাত্রী সুবিধায় পর্যাপ্ত টিকেট রয়েছে জানিয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, চতুর্থদিনে টিকেটের চাহিদা অনেক বেশি। যাত্রীরা লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে টিকেট নিচ্ছেন। এরই মধ্যে সোনার বাংলা ও বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের সব টিকেট বিক্রি হয়ে গেছে দুপুরের মধ্যেই। অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরুর পর থেকে গত তিনদিন চাহিদা ছিল না বললেই চলে। গত তিনদিনে ৫০ ভাগ টিকেট অবিক্রিত রয়ে গেছে। অতিরিক্ত কোচের পাশাপাশি স্পেশাল ট্রেনও রয়েছে। মঙ্গলবারও টিকেটের জন্য ভিড় থাকতে পারে বলে জানান তিনি।

৪র্থ দিনে মহানগর এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকেট নিতে আশা একটি কোম্পানীর কর্মকর্তা জহির উদ্দিন বলেন, দীর্ঘ লাইন ধরে আছি সেই সকাল থেকেই। বেলা ১১টার দিকে কাউন্টারে গিয়ে টিকেট চাইতেই পেলাম সেই কাংখিত টিকেট। পরিবার নিয়ে বাড়ি গিয়ে কোরবান করতে পারবো। তবে ঈদের সময় কাউন্টার আরো বাড়ানো উচিত বলে মনে করছেন তিনি।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, গত ১৮ আগস্ট ২৭, ১৯ আগস্ট ২৮ এবং ২০ আগস্ট ২৯ আগস্টের টিকেট দেওয়া হয়েছে। ২২ তারিখ দেওয়া হবে ৩১ আগস্টের টিকেট। ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ২৫ আগস্ট থেকে। সুবর্ণ এক্সপ্রেস প্রতিদিন সকাল সাতটায়, মহানগর গোধূলী বিকেল ৩টায়, চট্টলা এক্সপ্রেস সকাল সোয়া ৮টায়, মহানগর এক্সপ্রেস বেলা সাড়ে ১২টায়, সোনার বাংলা বিকেল ৫টায় এবং তূর্ণা এক্সপ্রেস রাত ১১টায় ঢাকার উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম স্টেশন ছেড়ে যাবে। পাহাড়িকা সকাল সোয়া ৯টায়, উদয়ন এক্সপ্রেস রাত ৯টা ৪৫ মিনিটে সিলেটের উদ্দেশ্যে, মেঘনা এক্সপ্রেস বিকেল সোয়া পাঁচটায় চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে এবং বিজয় এক্সপ্রেস সকাল ৭টা ২০ মিনিটে ময়মনসিংহের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম ছেড়ে যাবে। কর্ণফুলী এক্সপ্রেস সকাল ১০টায় ও ঢাকা মেইল এক্সপ্রেস রাত সাড়ে ১০টায় ঢাকার উদ্দেশ্যে, সাগরিকা এক্সপ্রেস সকাল সাড়ে ৭টায় চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস বিকেল সাড়ে ৩টায় বাহাদুরাবাদ’র উদ্দেশ্যে ও জালালাবাদ এক্সপ্রেস রাত সাড়ে ৯টায় সিলেটের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম স্টেশন ছেড়ে যাবে।
পরিবহন সূত্রে জানা গেছে, যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচলের সুবিধার্থে ঈদের তিন দিন আগে থেকে কন্টেনার ও জ্বালানি তেলবাহী ট্রেন ছাড়া কোনো পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল না করার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। একইভাবে সুষ্ঠুভাবে ও নিরাপদে ট্রেন চলাচলের সুবিধার্থে ট্রেন সম্পৃক্ত রেলওয়ে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের আগামী ২৮ আগস্ট থেকে ১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সবধরণের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

x

Check Also

সীতাকুন্ড জঙ্গল সলিমপুর এলাকাটি ধর্ষক এলাকা হিসাবে চিহ্নিত..!

বিশেষ প্রতিনিধিঃ১৯সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম সীতাকুন্ড ছিন্নমূল এলাকার রাশেদা (৩৫), স্বামীঃ বাচ্চু বিগত ০২ বৎসর পূর্বে মারা ...