জাতীয় আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তর এর মহাপরিচালক বলেছেন ইতিহাস-ঐতিহ্য গ্রন্থের মাধ্যমে সংরক্ষন করে আগামী প্রজন্মের কাছে সমৃদ্ধির ইতিহাস তুলে ধরুন

(১৬ জুলাই ২০১৭ রবিবার বিকেল ৩টায়) গতকাল বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের জাতীয় আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তর এর মহাপরিচালক জনাব মজিবুর রহমান আল মামুন এর সাথে চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের সভাপতি বিশিষ্ট ইতিহাস গবেষক সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীনের সৌজন্যে স্বাক্ষত ও মতবিনিময় আগারগাঁওস্থ আরকাইভস ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। এই সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ইতিহাস চর্চা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি, ভাষাআন্দোলন যাদুঘরের মহাপরিচালক অধ্যাপক এম.আর মাহবুব, বাংলাদেশ ইতিহাস চর্চা পরিষদের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি অধ্যাপক ডাঃ এম.এ মোক্তাদির। সৌজন্যে স্বাক্ষাতে জাতীয় আরকাইভস ও গ্রন্থগার অধিদপ্তরে স্থায়ীরূপে সংরক্ষনের জন্য ইতিহাস গবেষক সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীন রচিত গ্রন্থসমূহ মহাপরিচালক জনাব মুজিবুর রহমান আল মামুনের কাছে হস্থান্তর করেন। এসময় মহাপরিচালক বলেছেন, ইতিহাস ঐতিহ্য ও কালের স্বাক্ষী গৌরবময় বাঙ্গালী জাতির ইতিহাস সমূহ স্থায়ীরূপে সংরক্ষণের মাধ্যমে আগামী প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার লক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার দৃঢ়তার সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গ্রন্থগার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বাঙ্গালী জাতির ইতিহাসকে মর্যাদার আসনে অধিষ্টিত করেছেন। এটি আমাদের জন্য গৌরবময় ইতিহাস। আমাদের জাতীয় ইতিহাস গর্বের। ভাষাআন্দোলনের ইতিহাস, মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সর্বপরি বাঙালী জাতির ইতিহাসগুলো আরকাইভসে সংরক্ষনের মাধ্যমে হাজার হাজার বছর ধরে বেঁচে থাকবে। তিনি প্রত্যেক লেখক, সাহিত্যিক, গবেষক, কবি, সাংবাদিকদের লিখিত গ্রন্থসমূহ সচেতনার মাধ্যমে জাতীয় গ্রন্থগারে সংরক্ষনের জন্য এগিয়ে আসার আহবান জানান। আমাদের এই প্রচেষ্টায় ইতিহাস বেঁচে থাকবে হাজার হাজার বছর ধরে। তিনি লেখক, গবেষক সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীনকে ইতিহাস ঐতিহ্যের গ্রন্থসমূহ প্রণয়ন ও গ্রন্থগারে প্রদানের জন্য ধন্যবাদ জানান।

x

Check Also

৩৯নং ওয়ার্ডে জেলেদের মাঝে ৪০কেজি করে চাউল বিতরণ

. প্রেসবিজ্ঞপ্তী:২৫শে ফেব্রুয়ারি সরকার ঘোষিত জেলেদের মাঝে জন প্রতি ৪০কেজি করে ৩০ জনকে মোট ১২০০কেজি ...