রাজশাহীতে যুবক হত্যায় একজনের ফাঁসি, অন্যজনের যাবজ্জীবন

রাজশাহী মহানগরীর রায়পাড়ায় আলামিন হত্যা মামলার রায়ে একজনের ফাঁসি ও অপরজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রবিবার দুপুরে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শিরিন কবিতা আকতার এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন আবদুল মালেক এবং জাহাঙ্গীর হোসেন। এদের মধ্যে মালেকের বিরুদ্ধে ফাঁসির রায় এবং জাহাঙ্গীরকে যাবজ্জীবন করাদণ্ড প্রদান করেন বিচারক।

আদালত সূত্র জানায়, নসিমন করিমনের চাঁদা তোলাকে কেন্দ্র করে ২০১৩ সালের ৫ আগস্ট সৎ মামা আবদুল মালেক এবং তার সহযোগীদের হাতে ভাগিনা আলামিন খুন হন। নগরীর হড়গ্রাম কড়ইতলা এলাকায় এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। হত্যাকাণ্ডের আগে বেশ কয়েকদিন ধরে আলামিনের সঙ্গে মামা মালেকের নসিমন করিমন থেকে চাঁদা তোলা নিয়ে বিরোধ চলছিল। এরই ধারাবাহিকতায় ওইদিন রাত পৌনে ৯টার দিকে নগরীর হড়গ্রাম কড়ইতলা মোড়ে আলামিনকে ছুরিকাঘাত করে মালেক ও তার সহযোগী জাহাঙ্গীর পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আলামিনকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক আলামিনকে মৃত ঘোষণা করে।

এ ঘটনায় ওইদিন রাতে মালেক ও জাহাঙ্গীরকে আসামি করে নগরীর রাজপাড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহত আল-আমিনের বাবা আবদুল ওহাব। এ মামলায় মোট ১৫ জনকে সাক্ষী করা হয়। তবে আদালত পাঁচজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষেই এ রায় ঘোষণা করেন।

রায় ঘোষণার সময় মামলার দুই আসামি আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। পরে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়। বাদী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট মুন্না সাহা। আর আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট একরামুল হক।

x

Check Also

চট্টগ্রামে ভয়াবহভাবে কমেছে পাস ও জিপিএ-৫

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডে চলতি বছরে এইচএসসিতে পাসের হার ও জিপিএ-৫ দুটোই কমেছে। এবারের পাসের হার ...