বরিশাল বুলসে খেলতেই চাননি মুশফিক

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) গত (চতুর্থ) আসরে জাতীয় টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ছিলেন বরিশাল বুলসের আইকন ক্রিকেটার। নেতৃত্বভার ছিল তার কাধে। এছাড়া জাতীয় দলের তারকা ক্রিকেটার তাইজুল ইসলাম ও শাহরিয়ার নাফিসের মতো খেলোয়াড় ছিল দলটিতে। কিন্তু তার পরও শেষ অবধি ভালো করেনি বরিশাল বুলস।

অথচ শুরুতে বরিশালের হয়ে খেলতেই চাননি বাংলাদেশ জাতীয় দলের এই টেস্ট অধিনায়ক। পরবর্তীতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) অনুরোধেই খেলেছেন এবং পারফর্ম করেছেন। এমনই তথ্য উঠে আসল বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিকের কথায়।

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মুশফিককে নিয়ে বাজে বন্তব্য করেছেন বিসিবি পরিচালক ও বরিশাল বুলসের অন্যতম কর্ণধার এম এ আওয়াল বুলু। তার দাবি, মুশফিক দলের ভেতর গ্রুপিং করেন। শুধু তাই নয়, মুশফিকের অধিনায়কত্ব নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। অথচ অনেক অনুনয়-বিনয় দেখিয়েই মুশফিককে দলে পেয়েছিল বরিশাল।

এ কথা মনে করিয়ে দিয়ে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক বললেন, ‘এটা কিন্তু সম্মিলিতভাবে ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিক ও প্লেয়াররা মিলে ঠিক করেছিল কে কোন দলে খেলবে। আমার স্পষ্ট মনে আছে মুশফিকের বরিশালে খেলার ব্যাপারটা। আমি নিজে তাতে হস্তক্ষেপ করেছিলাম। মুশফিক কিন্তু বরিশালে যেতে চায়নি। বরিশাল টিম তাকে চেয়েছে। আমরা রাজী করিয়ে মুশফিককে বরিশাল টিমে দিই।’

শনিবার দুপুরে বরিশাল বুলসের মালিকের করা মন্তব্যের প্রতিবাদে বিসিবিতে সংবাদ সম্মেলন করতে এসে মুশফিক অনেকটা আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন। এসময় তার কন্ঠরোধ হয়ে আসছিল বারবার। চোখ ছলছল করছিল। একপর্যায়ে সংবাদ সম্মেলন শেষ না করেই তিনি লাউঞ্জ থেকে বেরিয়ে চলে যান।

বিপিএল কমিটি এবং বিসিবিও গুরুত্বের সঙ্গেই নিয়েছে অধিনায়ক ও জাতীয় দলের সিনিয়র ক্রিকেটার মুশফিকের সঙ্গে এমন অবমাননার ঘটনা। এ ঘটনায় বরিশাল বুলসের মালিককে অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে, অন্যথায় তাকে শাস্তি পেতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিপিএল গভর্নিং বোর্ডের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক।

x

Check Also

ইনিয়েস্তার চুক্তিতে ‘অভিনব’ প্রস্তাব দিল বার্সা

গত বছরের পারফরম্যান্সের খরা কাটিয়ে চলতি মৌসুমে আবারও চেনারূপে আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা। কিংবদন্তি মিডফিল্ডারের সঙ্গে নতুন ...