রাজধানীর দুই সিটি কর্পোরেশনে ৪১০টি ঈদ জামাত

রাজধানীর দুই সিটি কর্পোরেশনে এবার ঈদুল ফিতরের ৪১০টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে (ডিএসসিসি) ২৩০টি এবং ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে (ডিএনসিসি) ১৮০টি জামাত হবে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা উত্তম কুমার রায় জানান, ডিএসসিসি’র তত্ত্বাবধানে ৫৭টি ওয়ার্ডে ৪টি করে মোট ২২৮টি এবং জাতীয় ঈদগাহ ময়দান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে ১টি করে সর্বমোট ২৩০টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

ডিএসসিসি’র ওয়ার্ডগুলোতে অবস্থিত সিটি কর্পোরেশনের নিজস্ব মাঠ বা খোলা ময়দান বা স্কুল-মাদ্রাসার মাঠ বা সবচেয়ে পরিচিত ও জনবহুল স্থানে এ জামাতগুলো অনুষ্ঠিত হবে।

জাতীয় ঈদগাহ’র প্রস্তুতি প্রসঙ্গে তিনি জানান, প্রায় ১ লাখ মুসল্লি যেন নামাজ আদায় করতে পারে, সেই লক্ষ্যে ঈদগাহ’র প্রস্তুতির কাজ পুরোদমে এগিয়ে চলেছে। এখন ত্রিপল লাগানোর কাজ চলছে।

২৭ রমজানের মধ্যে সামিয়ানা টাঙানোসহ অধিকাংশ কাজ শেষ করার নির্দেশনা রয়েছে ডিএসসিসি’র উল্লেখ করে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের এ কর্মকর্তা বলেন, বর্ষা মৌসুমে ঈদ জামাত হবে, তাই বৃষ্টি হলেও যেন মুসল্লিরা নির্বিঘ্নে নামাজ আদায় করতে পারেন, সে ভাবনা মাথায় রেখেই এবার ঈদগাহ প্রস্তুত করা হচ্ছে।

ঈদগাহে প্রায় ৫ হাজার মহিলার পৃথক নামাজ আদায়ে ব্যবস্থা করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, মুসল্লিদের জন্য ওজু ও মোবাইল টয়লেটের ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে। হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পরা মুসল্লিদের চিকিৎসাসেবা দিতে ঈদগাহ ময়দানে রাখা হচ্ছে এ্যাম্বুলেন্সসহ মেডিক্যাল টিম।

‘‘ঈদের প্রধান জামাতে প্রয়োজনীয় সেবা নিশ্চিত করতে মেয়রের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। জাতীয় ঈদগাহে রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রিসভার সদস্য, বিচারপতি ও কূটনৈতিকগণ ঈদ নামাজ আদায় করবেন বিধায় পুরো ঈদগাঁহ ও এর আশেপাশের এলাকা জুড়ে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। লাগানো হচ্ছে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা। রয়েছে ডগ স্কোয়াড এবং উচ্চ প্রযুক্তির মেটাল ডিটেক্টর ব্যবহারে তল্লাসির ব্যবস্থা।’’

পুলিশ ইতোমধ্যে সিসি ক্যামেরা বসানোর কাজ শুরু করে দিয়েছে উল্লেখ করে উত্তম কুমার বলেন, মাঠে আইন-শৃংখলা বাহিনীর অস্থায়ী ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। বোমা ডিসপোজাল ইউনিটের পাশাপাশি আরো আছে সাদা পোশাকে সার্বক্ষণিক গোয়েন্দা নজরদারি। এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশ এবং র‌্যাব প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছে বলেও তিনি জানান।

‘‘জাতীয় ঈদগাহে প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ৮টায়। আবহাওয়া খুব প্রতিকূল থাকলে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের সকাল ৯টার জামাত হবে দেশের প্রধান ঈদ জামাত।’’

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সমাজ কল্যাণ অফিসার এনায়েত হোসেন জানান, ডিএনসিসি’র ৩৬টি ওয়ার্ডের প্রতিটিতে ৫টি করে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। কাউন্সিলররা নিজ উদ্যোগে কাজ শুরু করে দিয়েছেন। মুসল্লিরা যাতে নিকটবর্তী দুরত্বে গিয়ে স্বাচ্ছন্দ্যে নামাজ আদায় করতে পারেন, সেভাবেই স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।

x

Check Also

নারায়ণগঞ্জে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকে আগুন : নিরাপত্তা কর্মীর মৃত্যু

  নারায়ণগঞ্জ, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ (বাসস) : শহরের টানবাজার এলাকার ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের (ইউসিবিএল) নারায়ণগঞ্জ ...