পাকিস্তানে চ্যাম্পিয়ন ট্রফির শিরোপা জিতার আনন্দ উযদাপনের সময় ফাঁকা গুলিতে আহত ৬

প্রথমবারের মতো আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপাজয়ের স্বাদ পেয়েছে পাকিস্তান।তাও আবার ফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতকে হারিয়ে। পাকিস্তানের ক্রিকেট সমর্থকদের উচ্ছ্বাস-উল্লাসটা বাধভাঙা হবেই এটাই স্বাভাবিক। আর সেই বাধভাঙা আনন্দ উদযাপনের সময় ঘটে গেছে কিছু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাও। আতশবাজি তো ছিলই, কেউ কেউ আবার উদযাপন করেছিলেন ফাঁকা গুলি চালিয়েও। আর সেই ফাঁকা গুলিতে গুলিতে আহত হয়েছেন ছয়জন ব্যাক্তি।

ভারত-পাকিস্তানের জমজমাট ফাইনাল দেখার জন্য পাকিস্তানের বিভিন্ন জায়গায় বড় স্ক্রিনে খেলা দেখার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের রাজধানী মারদানেও ছিল এমন ব্যবস্থা। সেখানে অগনিত মানুষ একসঙ্গে দেখেছেন পাকিস্তানের ১৮০ রানের দাপুটে জয়ের চিত্র। জয় নিশ্চিত হয়ে যাওয়ার পর পরই সেখানে সবাই একসঙ্গে মেতে উঠেছিলেন আনন্দ-উল্লাসে। অনেকে উদযাপন করেছেন বন্দুকের গুলি চালিয়েও। আর তাতেই বেধেছে বিপত্তি। ফাঁকা গুলি ছুড়লেও অসাবধনতাবশত সেই গুলি লেগে আহত হয়েছেন ছয়জন।

টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছে হেরে গিয়েছিল পাকিস্তান। কিন্তু ফাইনালে ভারতকে কোনো সুযোগই দেয়নি সরফরাজ আহমেদের দল। ব্যাটে-বলে দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়ে পাকিস্তান পেয়েছে ১৮০ রানের দাপুটে জয়। প্রথমবারের মতো জিতেছে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপা।

ম্যাচশেষে অনেকেই ভিড় করেছিলেন পাকিস্তানের এই শিরোপা জয়ের অন্যতম নায়ক ফখর জামানের বাড়িতে। সেখানে একে-অপরকে মিষ্টি খাইয়ে শিরোপা জয়ের আনন্দ ভাগাভাগি করেছেন পাকিস্তানের সমর্থকরা। দেশে ফেরার পর পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা যে বীরের সম্মানই পাবেন, সে ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই।

x

Check Also

চট্টগ্রাম কমার্স কলেজ ছাত্রদলের সাবেক সভাপতির নিপুর মৃত্যুতে…..

প্রেসবার্তাঃ২৩আগস্ট জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল চট্টগ্রাম সরকারি কমার্স কলেজ শাখার সাবেক সভাপতি নগর ছাত্রদলের ৯০ দশকের এরশাদ ...