দেশপ্রেমিক মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের হাত ধরেই বাংলাদেশ সমৃদ্ধ ও নিরাপদ দেশে উন্নিত হবে বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, বীর মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদের সন্তানরা গর্বিত নাগরিক। মেয়র আশা করেন দেশপ্রেমিক মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের হাত ধরেই বাংলাদেশ সমৃদ্ধ ও নিরাপদ দেশে উন্নিত হবে। কোন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান যাতে বিপদ গামী না হয় সেদিকে মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠন ও মুক্তিযোদ্ধা ছাত্র কমান্ডের নেতৃবৃন্দকে সুদৃষ্টি রাখতে হবে। ১৭ জুন ২০১৭ খ্রি. শনিবার বিকেলে নগরভবনের কি বি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা স্মৃতি পরিষদের আয়োজনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কর্মরত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষনে মেয়র এ কথা বলেন। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এবং বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা স্মৃতি পরিষদের উপদেষ্ঠা, সাবেক গণপরিষদ ও সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ ইসহাক মিয়ার সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুর রহিম এর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব নঈম উদ্দিন আহমদ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. জিনবোধি ভিক্ষু, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ মাহমুদুল হক, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, চসিক কাউন্সিলর মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, মো. আবদুল কাদের, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সদস্য বেলাল উদ্দিন, বঙ্গবন্ধু প্রবীণ সমিতির বন্দর শাখার সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রিদুওয়ানুল হক, সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন, মহানগর যুবলীগ নেতা শাহেদুল ইসলাম শাহেদ, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, মহানগর যুবলীগ নেতা সুমন দেবনাথ, সন্ধিপনা সাংস্কৃতিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ডি কে দাশ মামুন, চট্টগ্রাম রিপোর্টাস ইউনিটের সভাপতি কিরন শর্মা, ডিজিটাল বাংলাদেশ পাবলিসিটি কাউন্সিলের আহবায়ক মো. জসিম উদ্দিন, মহানগর যুবলীগ নেতা এম মহিউদ্দিন, ছাত্রলীগের সাবেক সহ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন, চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবাল, সংগঠনের প্রচার সম্পাদক বোরহান উদ্দিন গিফারী, আইন সম্পাদক এড. টিপু শীল জয়দেব, নগর ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক আবু সায়েম চৌধুরী, সদস্য অভিজিৎ দে ঝুমুর, গাজী আক্কাস, আইন কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাকসুদুর রহমান মাসুদ, সাংবাদিক স ম জিয়াউর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা লেয়াকত হোসেন, সাখাওয়াত হোসেন সওকত, রাশেদ মাহমুদ পিয়াস, আবদুস ছত্তার, আনন্দ মজুমদার, সাইফুল আরাফাত বাপ্পা, ইরফান উদ্দিন তাসকিন, গোফরান চৌধুরী, সেলিম উদ্দিন ডিবলু ও আজিম উদ্দিন। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা মাহবুবুর রহমান।
অনুষ্ঠানের সভাপতি, সাবেক গণপরিষদ ও সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ ইসহাক মিয়া বলেন, ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের শিকার হয়ে জাতির পিতাকে স্ব পরিবারে জীবন দিতে হয়েছে। আগামীতে দেশে যাতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটতে না পারে সেজন্য বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের অতন্দ্র প্রহরির ভূমিকা পালন করতে হবে। অন্যান্য আলোচকগণ বলেন, দেশপ্রেম ও মানবপ্রেম বিবর্জিত রাজনীতি কাম্য নয়। তারা সকলের মধ্যে দেশপ্রেম ধারন করার আহবান জানান। অনুষ্ঠানের শুরুতে খতমে কোরআন, মিলাদ মাহফিল এবং অনুষ্ঠান শেষে ইফতার অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা হাজী মোহাম্মদ ইসহাক মিয়া ও অতিথিরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেন। এ অনুষ্ঠানে ১৬ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে সংবর্ধিত করলো বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা স্মৃতি পরিষদ।

x

Check Also

টোল আদায়ে রেকর্ড গড়েছে বঙ্গবন্ধু সেতু টোলপ্লাজা

টোল আদায়ে রেকর্ড গড়েছে যমুনা নদীর উপর নির্মিত দেশের বৃহৎ বঙ্গবন্ধু সেতু টোলপ্লাজা। গত ২৪ ...