ইসলামে জঙ্গিবাদের কোন স্থান নেই : শিল্পমন্ত্রী

শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, ইসলাম হচ্ছে শান্তির ধর্ম। ইসলামে জঙ্গিবাদের কোন স্থান নেই। যারা জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করে মানুষ হত্যা করছে, বর্তমান সরকার তাদের কঠোরভাবে দমন করেছে।
গতকাল শনিবার ঝালকাঠির পুলিশ লাইনসে জেলা পুলিশের ইফতার পূর্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
শিল্পমন্ত্রী ধর্মকে এক শ্রেণীর লোক কলুষিত করছে মন্তব্য করে বলেন, প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) ইসলাম প্রতিষ্ঠার জন্য আমৃত্যু লড়াই করেছেন। আজকে সেই ধর্মকেই কলুষিত করার জন্য একটি গোষ্ঠী জঙ্গিবাদের সৃষ্টি করছে। জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করে সারা বিশ্বকে তছনছ করে দেওয়া হচ্ছে।
আমির হোসেন আমু বলেন, বাংলাদেশ একটি সম্ভাবনাময় দেশ হিসেবে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছে। এ সম্ভাবনাকে নষ্ট করার জন্য এখানে জঙ্গিবাদের পায়তারা করা হয়েছিল।
সরকার জঙ্গিবাদ কঠোরহস্তে দমন করতে সক্ষম হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী আরও বলেন, আগামীতে যাতে এরা মাথাচাড়া দিয়ে না উঠতে পারে সেজন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করে তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি অবিচল বিশ্বাস আছে বলেই জনগণ আমাদের প্রতি আস্থা রাখতে সাহস পাচ্ছে। আগামী নির্বাচনেও বঙ্গবন্ধুর প্রতীক নৌকায় ভোট দিয়ে সেই আস্থা বজায় রাখতে হবে।
ঝালকাঠির পুলিশ সুপার মো. জোবায়েদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা ও দায়রা জজ মো. ইখতিয়ারুল ইসলাম মল্লিক, জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু শামীম আজাদ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সরদার মো. শাহ আলম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খান সাইফুল্লাহ পনির, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুলতান হোসেন খান, পৌর মেয়র লিয়াকত আরী তালুকদার, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আব্দুল মান্নান রসুল প্রমুখ।
এর আগে বিকাল ৫ টায় ঝালকাঠি সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে শিল্পমন্ত্রী ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে টিআর ও কাবিখা দ্বারা বাস্তবায়িত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মাঝে সৌরবিদ্যুত এবং শিল্পমন্ত্রীর স্বেচ্ছাধীন তহবিল থেকে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চেক বিতরণ করেন।
২৭ প্রতিষ্ঠান ও ৪৫ জন ব্যক্তির মধ্যে সংসদ সদস্য হিসেবে আমির হোসেন আমুর স্বেচ্ছাধীন তহবিল থেকে দশ লাখ টাকার চেক বিতরণ করা হয়। একই অনুষ্ঠানে এক কোটি ৮৪ লাখ টাকা মূল্যের ৮১৬ টি সোলার প্যানেল বিতরণ করা হয়।

x

Check Also

পাকিস্তানীরা বাঙ্গালী জাতীকে মেধাশূণ্য করতে চেয়েছিল,সাবিহা নাহার

চিটাগং ডেইলি.কম(প্রতিবেদক):১৪ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবিদের হত্যা করে পাকিস্তানীরা বাঙ্গালীজাতীকে মেধাশূণ্য করতে চেয়েছিল। কিন্তু বাঙ্গালী জাতি বীরের জাতি। ...