এ আবার কেমন সেবা! পল্লী বিদ্যুতের অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগ

চন্দনাইশ (চট্টগ্রাম)প্রতনিধি:ি
চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিÑ১ এর অধীনে চন্দনাইশ উপজেলায় বিভিন্ন গ্রাহককে বিদ্যুৎ উন্নয়নের নামে প্রতারণার মাধ্যৃমে টাকা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সম্প্রতি উপজেলার দোহাজারী ইউনিয়নের চাগাচর গ্রামের পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক বাচা মিয়া, ছাবের আহমদ ও নুরুল ইসলামসহ একাধিক গ্রাহক এই অভিযোগ আনেন। ভূক্তভোগী পল্লী বিদ্যুৎ গ্রাহকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা যায়, প্রতিনিয়ত পল্লী বিদ্যুৎ গ্রাহকরা নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন । বর্তমান সরকার বিদ্যুৎ মানুষের ঘরে ঘরে পৌছে দিতে বিদ্যুৎখাতে কোটি টাকা বরাদ্ধসহ নানা ভূর্তকি দিয়ে বিদ্যুৎ সেবার জন্য কাজ করলেও কতিপয় অসাধু কর্মকতার দায়িত্ব অবহেলার কারণে তা ভে—ে যেতে বসেছে।
চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিÑ১ এর অধীন চন্দনাইশ উপজেলায় বিদ্যুতের কারিগরি ্উন্নয়নের কথা বলে গ্রাহকদেরকে অতিরিক্ত দেড়/দুই হাজার টাকা প্রদানের জন্য নোটিশ প্রদান করা হয়। চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিÑ১ এর জেনারেল ম্যানেজার এ. এইচ. এম. মোবারক উল্যাহ স্বাক্ষরিত এসব নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে যে, গ্রাহকদের বিদ্যুৎ ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পেলেও পল্লী বিদ্যুতের যাবতীয় কারিগরী উন্নয়ন সম্ভব হয়নি। ফলে লোডশেডিং করতে হয় । গ্রাহকদের চাহিদা মেটাতে সকল প্রকার কারিগরী উন্নয়নের জন্য বর্ধিত লোড ব্যবহারে লোড বৃদ্ধি ফি বাবদ ও বর্ধিত জামানত বাবদ গ্রাহকদের উপর মোটা অংকের টাকা ধার্য্য করা হয়েছে বলে উক্ত নোটিশে উল্লেখ করা হয়।
তাছাড়া, নোটিশগুলোতে ব্যাপক অনিয়মের চিত্র ফুটে উঠেছে। গ্রাহক বাচা মিয়া (হিসাব নং-৩২২০) জানান, সংযোগকালীন লোড দশমিক ৬০ কিলোওয়াট থেকে ১ দশমিক ২০ কিলোওয়াটে বৃদ্ধি পাওয়ায় তাকে লোড ফি বৃদ্ধি বাবদ ৫০০টাকা ও জামানত বৃদ্ধি বাবদ ৬৯৫ টাকাসহ মোট ১১৯৫টাকা পরিশোধ করতে বলা হয়েছে। অন্যদিকে,গ্রাহক ছাবের আহমদ (হিসাব নং-৩৭১-৩২৭০) জানান, লোড দশমিক ৬০ কিলোওয়াট থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ১ দশমিক ২০ কিলোওয়াট হওয়ায় তাকে বর্ধিত লোড বাবদ ৫০০টাকা ও বর্ধিত জামানত বাবদ ৮০০টাকা সহ মোট ১৩০০টাকা জমা দিতে বলা হয়েছে। মোহাম্মদ নুরুল ইসলামকে (হিসাব নং ৩৭১-৩১৪৬) প্রদত্ত নোটিশে দেখা যায়, তাকে লোড দশমিক ৬০ কিলোওয়াট থেকে ১ দশমিক ১০ কিলোওয়াট পর্যন্ত বৃদ্ধির কারণে ৫০০টাকা লোড ফি ও ৩০০টাকা জামানত ফি বাবদ মোট ৮০০ টাকা পরিশোধ করতে বলা হয়েছে। এতে গ্রাহকদের মধ্যে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের চিঠির মাধ্যমে টাকা আদায় করা নিয়ে এলাকায় ধুম্রজাল সৃষ্ঠি হয়েছে। এব্যাপারে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর জেনারেল ম্যানেজার এ এইচ এম মোবারক উল্লাহ্র মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি চিঠি প্রেরণের সত্যতা স্বীকার করে বলেন পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বিধি মোতাবেক চিঠি প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন

x

Check Also

ছাত্রসেনার চন্দনাইশ উপজেলা টিটিসি সম্পন্ন

বর্তমানে দেশে রাজনৈতিক সন্ত্রাসের মূল কারণ নেতাদের মধ্যে নৈতিকতা নাই আজ ২৫ সেপ্টেম্বর সকাল ৮ ...