ভাল প্রোফাইল ছবির অ্যাটিকেটসগুলি …

আগে ছবি তোলার পর সেরা ছবিটি প্রিন্ট করে অ্যালবামে রেখে দেয়া হতো। যুগ পাল্টেছে। যুগের সাথে বদলেছে মানুষের অভ্যাসও। তাই এখন সেরা ছবিটি রেখে দেয়া হয় ফেসবুক কিংবা টুইটারের প্রোফাইলে।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রোফাইল ছবি মানে শুধু নিজের চেহারা দেখানো নয়। প্রোফাইল পিকচারের মাধ্যমে মানুষের রুচিবোধও প্রকাশ পায়। তাই ইদানীং যে কোনো উৎসবে তরুণদের ‘প্রোফাইল পিকচার’ এর জন্য একটি ভালো ছবি তোলার দিকে তরুণদের আকর্ষণ থাকে। আকর্ষণীয় ‘প্রোফাইল পিকচার’ তুলতে চাইলে কিছু অ্যাটিকেটস জানতে হবে। জেনে নিন ভালো ‘প্রোফাইল পিকচার’ এর অ্যাটিকেটসগুলি …

প্রচুর আলো আছে এমন স্থান নির্বাচন

ভালো ছবি তোলার জন্য চাই প্রচুর আলো। ছবি তোলার ক্ষেত্রে সঠিকভাবে আলো নির্বাচন তাই জরুরী। সরাসরি সূর্যের আলোতে ছবি ঝলসে যায় আবার একদম অন্ধকারেও ছবি ভালো আসে না। তাই ক্যামেরার অবস্থান পরিবর্তন করে যেখানে পর্যাপ্ত আলো আছে সেখানে ছবি তুলুন। সাদা দেয়াল অনেক সময় ‘রিফ্লেক্টর’–এর কাজ করে। রাতে ছবি তুললে ল্যাম্পের পাশে ছবি তুলুন। এতে ছবি উজ্জ্বল আসবে।

জানালার পাশে তুলুন

জনপ্রিয় কার্দেশিয়ান পরিবারের ছবিগুলো দেখেছেন? তারা বেশির ভাগ সেলফি জানালার পাশে তোলেন। আর তার কারণ হলো জানালার পাশে ছবি তুললে, ছবি ভালো হয়। তবে এক্ষেত্রে জানালাকে পেছনে রেখে ছবি তোলা যাবে না। জানালার দিকে তাকিয়ে তুলতে হবে ছবি। তাহলে মুখ পর্যাপ্ত পরিমাণে আলো পড়বে। এভাবে ছবি তুললে মুখ উজ্জ্বল দেখায় এবং পেছনের ব্যাকগ্রাউন্ড গাড় দেখায়। ফলে ছবিতে শৈল্পিক সৌন্দর্য থাকে।

একাধিক ছবি তুলুন

ছবি তোলার ক্ষেত্রে একাধিক ছবি তুলুন। একই ভঙ্গিতে না তুলে নানান ভঙ্গিতে একাধিক ছবি তুলে রাখুন। এতে প্রোফাইল পিকচার নির্বাচন করতে সুবিধা হবে। সবগুলো ছবির মাঝে থেকে সেরাটি বেছে নিতে পারবেন প্রোফাইল ছবির জন্য। আবার নানান ভঙ্গির কয়েকটি ছবি কোলাজ করে পাশাপাশি বসিয়েও নিতে পারেন। এই পদ্ধতিটিও বর্তমানে সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীদের কাছে বেশ জনপ্রিয়।

ন্যাচারাল থাকুন

ইদানীং সামাজিক মাধ্যমে প্রোফাইল পিকচার দেওয়ার ক্ষেত্রে চলছে ‘ক্যানডিড’ ছবি। ক্যামেরার দিকে দৃষ্টি না দেয়া খুব সাধারণ কোনো মুহূর্তকে  ক্যামেরাবন্দী করে প্রোফাইল ছবি হিসেবে দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও প্রোফাইলের ছবিতে যেহেতু ব্যক্তিত্ব প্রকাশ পায় তাই মুখের ভঙ্গির দিকে খেয়াল রেখে ছবি তুলুন।  চেহারা ভালো দেখানোর জন্য কৃত্রিম মুখভঙ্গি করবেন না।

ছবি তোলার স্থান

সাধারণত রৌদ্রজ্জ্বল দিনে সবুজের মাঝে ছবি খুব ভালো হয়। তাই সবুজ গাছপালায় ঘেরা স্থানে কিংবা ফুলের বাগানে ছবি তুলুন প্রোফাইল পিকচারের জন্য। ঐতিহাসিক কোনো স্থানে ছবি তোলার ক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন, ভিড়ের মাঝে যেন ক্যামেরার ফোকাসটা আপনার চেহারাতেই থাকে। ডিএসএলআরে ছবি তোলার ক্ষেত্রে পেছনের ব্যাকগ্রাউন্ড কিছুটা ঘোলাটে করে আপনার চেহারায় ক্যামেরার ফোকাস করুন।

মোবাইলের ক্যামেরাকে রিভার্স করুন

সাধারণত আমরা মোবাইল ক্যামেরাকে স্বাভাবিক রেখে সেলফি তুলি কিন্তু একবার ক্যামেরাটাকে রিভার্স করে অর্থাৎ ক্যামেরাকে নীচের দিকে রেখে সেলফি তুলে দেখুন, ছবির মান ও মুড অনেক বেটার পেয়ে গেছেন। চোখের দৃষ্টি আগের ক্যামেরার ফোকাস যেখানে ছিল সেখানেই থাকবে। এতে আপনার চোখ ও পুরো ছবিটাতে একটা স্বাপ্নিক আবহ চলে আসবে।

মোবাইলের অ্যাপ ব্যবহার করুন

মোবাইল ফোনে ভালো ছবির জন্য নানান ধরণের অ্যাপ পাওয়া যায়। এগুলোর থেকে ভালো রেটিং এর একটি অ্যাপ নামিয়ে নিন। ছবি তোলার পর নানান রকমের ফিল্টার দিয়ে ছবির রং এবং উজ্জ্বলতা ঠিক করে নেয়া যায় এসব অ্যাপে। ভালো প্রোফাইল ছবির জন্য এই অ্যাপগুলো আপনার বন্ধু হতে পারে।

চেহারা ঢাকবেন না

অনেকেই চেহারা ঢেকে কিংবা ক্যামেরার দিকে পিঠ দিয়ে ছবি তোলেন। প্রোফাইল ছবি হিসেবে এধরনের ছবি একেবারেই অনুপযোগী। এতে আপনার বন্ধু তালিকার অনেকেই চিনতে পারবে না আপনাকে। তাই প্রোফাইল ছবি তোলার ক্ষেত্রে চেহারা পুরোপুরি বোঝা যাচ্ছে কিনা সেই ব্যাপারে খেয়াল রাখুন।

মডেলঃ মাহি মোস্তফা

x

Check Also

এনইউবিটি শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে পরিচ্ছন্নতা অভিযান

প্রেস বিজ্ঞপ্তী খবর:সোমবার নর্দান ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এন্ড টেকনোলজি খুলনা এর ইংরেজী বিভাগ এবং ব্যবসায় ...