ইসরায়েলি বসতির বিরুদ্ধে ইউনেস্কোর নিন্দা প্রস্তাব | যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধিতা

অধিকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে ইসরায়েলি বসতি স্থাপনের নিন্দা জানিয়ে একটি প্রস্তাব পাস করেছে জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো। প্রস্তাবে বলা হয়েছে, জেরুজালেম ও গাজার অধিকৃত ভূখণ্ডে ইসরায়েলের বসতি স্থাপন প্রক্রিয়া অনৈতিক। একইসঙ্গে এ প্রক্রিয়া জেরুজালেমের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি ধ্বংসে ভূমিকা রাখছে।

সংস্থাটির পক্ষ থেকে দেয়া বিবৃতিতে বলা হয়, মঙ্গলবার (২ মে) নির্বাহী পরিষদের বৈঠকে এ সংক্রান্ত প্রস্তাব উত্থাপন করে সদস্য দেশ সুদান, আলজেরিয়া, মিসর, লেবানন, মরক্কো, ওমান ও কাতার। পরে ভোটাভুটিতে ২২টি দেশের সমর্থন পেয়ে প্রস্তাবটি পাস হয়।

এতে জেরুজালেমে ইসরায়েলের সার্বভৌমত্বের দাবি খারিজ করা হয়। অনৈতিক বসতি স্থাপন প্রক্রিয়া বন্ধের আহ্বান জানানো হয়। বলা হয়, ৩টি ধর্মের মানুষের কাছে পবিত্র শহর জেরুজালেমের মযার্দা ক্ষুন্ন করছে ইসরায়েলের এ উদ্যোগ। একইসঙ্গে গাজা উপত্যকায় অবরোধ আরোপের কঠোর নিন্দা জানানো হয়। প্রস্তাবটির বিপক্ষে ভোট দেয় যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ইতালিসহ মোট ৭টি দেশ।

বিতর্ক উপেক্ষা করে ২০১১ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে ফিলিস্তিনকে সদস্যপদ প্রদান করে ইউনেস্কো। এবার সংস্থাটির নির্বাহী পরিষদে এ প্রস্তাব পাসকে ‘আন্তর্জাতিক আইনের জয়’ বলে মনে করছেন ফিলিস্তিনি নেতারা।

ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ মালকি বলেন, ‘এর মধ্য দিয়ে ইসরায়েলি অন্যায়, দখলদারি এবং অবৈধ নীতির বিরুদ্ধে বিশ্ব ন্যায়ের পক্ষ নিয়েছে। আমরা আন্তর্জাতিক আইনের আলোকেই ইসরায়েলি দখলদারিত্ব মোকাবেলা করব।’

অন্যদিকে এ প্রস্তাবকে ‘অপ্রয়োজনীয় রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড’ বলে মনে করছে ইসরায়েল। এ প্রস্তাব রাষ্ট্রীয় নীতিতে কোনো পরিবর্তন আনবে না বলেও জানিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

x

Check Also

সমকামিতা ইস্যুতে বলি তারকাদের তোপের মুখে রবিশঙ্কর

‘সমকামিতা এক ধরনের প্রবণতা। এটা চিরস্থায়ী নয়।’ এমন কথায় তোপের মুখে পড়লেন শ্রী শ্রী রবিশঙ্কর। ...