শ্রমজীবি মানুষের অধিকার আদায়ে নির্বাচিত সরকারের বিকল্প নেই, শ্রমিক জনতার র‌্যালী পূর্বক সমাবেশে =ডা. শাহাদাত হোসেন


কোতোয়ালী, বাকলিয়া, চকবাজার ৯ সংসদীয় আসনের শ্রমিক জনতার র‌্যালী পূর্বক সমাবেশে =======ডা. শাহাদাত হোসেন

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনিপর সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, আজও শ্রমিজীবি মানুষ তাদের অধিকার ফিরিয়ে পায়নি। তারা তাদের অধিকার থেকে প্রতিনিয়ত বঞ্চিত হচ্ছে। প্রতিবছর হাজার হাজার শ্রমিক তাদের কর্মস্থলে মারা যাচ্ছে। বয়লার বিস্ফোরণ, শিপইয়ার্ড, কারখানার অব্যবস্থাপনার কারণে দুর্ঘটনায় শ্রমিকদের প্রাণ দিতে হচ্ছে। শ্রমিকরা তাদের ন্যায্য মজুরী থেকে বঞ্চিত। জাতীয় মজুরী কমিশন ঘোষণা করা হচ্ছেনা। এই অবৈধ সরকার দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার পরও শ্রমিকদের ন্যয্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে। দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব দেশের সাধারণ জনগন ও শ্রমজীবি মানুষের কল্যাণে একটি গণতান্ত্রিক নির্বাচিত সরকার প্রতিষ্ঠার বিকল্প নেই।
ডা. শাহাদাত হোসেন আরো বলেন, প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা দেরীতে হলেও মুখ খুলেছেন। দেশের প্রধান বিচারপতি যদি বলেন, “দেশে আইনের শাসন নেই” তাহলে সাধারণ জনগণের অবস্থা কি হবে? এই অবৈধ সরকার ক্ষমতায় ঠিকে থাকতে বিচার বিভাগ, শাসন বিভাগ, নির্বাহী বিভাগ সহ সরকারের সকল প্রতিষ্টানকে ধ্বংশ করে দিচ্ছে। তাই আমরা বারবার বলে আসছি, দেশে একটি নির্বাচিত সরকার দরকার। দেশের জনগনকে প্রধান বিচারপতির বক্তব্য উপলব্ধি করতে হবে। দেশকে কোথায় নিয়ে যাচ্ছে এই অবৈধ সরকার। তাই অবিলম্বে গণ প্রতিরোধের মাধ্যমে একটি নির্বাচিত সরকার প্রতিষ্ঠিত করতে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নিতেৃত্বে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেশের মানুষের অধিকার আদায়ে সাধারণ শ্রমিক জনতাকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান।
তিনি অদ্য বিকাল ৩ ঘটিকার সময় কতোয়ালী, বাকলিয়া, চকাবাজার ৯ সংসদীয় আসনে শ্রমিক জনতার র‌্যালী পূর্বক সমাবেশে প্রধান অথিতির বক্তব্যে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন।
শ্রমিকদল নেতা ও বাকলিয়া থানা শ্রমিক দলের সভাপতি গুলজার হোসেন লেদুর সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপি নেতা মোহাম্মদ আলী, আফতাবুর রহমান শাহীন, কামরুল ইসলাম, গাজী সিরাজ উল্লাহ, থানা বিএনপি নেতা আমিন মাহমুদ, এম.আই চৌধুরী মামুন, আলহাজ্ব জাকির হোসেন, এ.কে.এম পেয়ারু, এস.এম সেলিম, এ.কে খাঁন, মো: ফরিদ, সাব্বির আহমেদ, হাজী এমরান উদ্দীন, ইয়াকুব চৌধুরী নাজিম, হাজী মো: ইউনুছ, হাফেজুল ইসলাম মজুমদার, যুবদল নেতা নুর হোসেন নুরু, এমদাদুল হক বাদশা, আছাদুর রহমান টিপু, মো: আলাউদ্দীন, নাছিম চৌধুরী, এ.কে আজাদ খান, মাঈনুদ্দিন পারভেজ, মো: মুসা, শ্রমিকদল নেতা আবুল কালাম, আব্দুস ছাত্তার, নুর মোহাম্মদ, রাজা মিয়া, নুরুল ইসলাম, মো: ইউনুছ, আব্দুল বারেক, মো: মিজান, মো: রনি, মামুন, আলম, আব্দুল মান্নান, হানিফ,মাসুদ, জাহাঙ্গীর, ছাত্রদল নেতা মো: জহির, ইয়াকুব খান, রিমন, শামীম প্রমুখ। র‌্যালী বউ বাজার থেকে শুরু হয়ে ডি.সি রোড, দেওয়ান বাজার হয়ে দিদার মার্কেটের সম্মূখে শেষ হয়।

x

Check Also

১৫ ডিসেম্বর ষ্টীলমিলস্ স্কুলের পুনর্মিলনী

দেশের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ চিটাগাং স্টীল মিলস হাই স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের পুনর্মিলনী আগামী ১৫ই ডিসেম্বর ...