ধর্মান্তরিত হওয়ায় আমাকে জঙ্গি আখ্যা দিচ্ছেন বাবা – আবদুর রহমান (পূর্বনাম- অর্পণ শীল)

ধর্মান্তরিত হওয়ায় হাটহাজারীর সুভাষ শীল সন্তানকে ‘জঙ্গি’ আখ্যা দিয়ে আইনের ম্যারপ্যাচে ফেলার চেষ্টা করছেন-এমনটি দাবি করেছেন – ওমানে ‘ও’ লেভেল পাশ করা আবদুর রহমান (অর্পণ শীল)। ওমানে ‘ও’ লেভেল পাশ করা অর্পন শীল এখন জঙ্গি আবদুর রহমান শিরোনামে গত বৃহস্পতিবার দৈনিক পূর্বকোণে সংবাদ প্রকাশিত হয়। ছেলে ‘জঙ্গি’ গ্রুপে যোগ দিতে গিয়ে নিখোঁজ রয়েছে এমনটি দাবি করে সুভাষ হাটহাজারী থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেছেন। বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছেও একই ধরনের তথ্য দিয়েছেন সুভাষ। গতকাল শনিবার দুপুরে পূর্বকোণ কার্যালয়ে সশরীরে এসে অর্পণ ওরফে আবদু রহমান বলেন, পত্রিকা অফিসে এসে আবার বাবা যা বক্তব্য দিয়েছেন তা মিথ্যে। আমি পবিত্র ইসলাম ধর্ম দিক্ষিত হয়েছি বিধায় মিথ্যে তথ্য দিয়ে আমাকে কখনো ‘আই এস’ কখনো ‘জঙ্গি’ সাজানোর চেষ্টা করছেন। আমি বুঝে শুনে ধর্মান্তরিত হয়েছি।

ইসলামের প্রতি অনুগত হয়ে রাসুলের সুন্নাত পালনের উদ্দেশ্যে দাঁড়ি রেখেছি। এতে কি ‘আইএস’ হয়ে যায়?
অর্পণ বলেন, ২০১৪ সালে ২৮ এপ্রিল ‘সুলতানাত অফ ওমান’ এর মিনিটিষ্ট্র অফ এন্ডোর্সম্যান্ড এন্ড রিলিজিয়ান্স এর মাধ্যমে এফায়ার্স অফ ইফতা অফিসে ইসলাম গ্রহণ করেছি। উক্ত সংস্থা ওমানের সরকারি ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অন্তর্ভুক্ত।
ধর্মান্তরিত হবার পর বাবা আমার বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে। পুরনো ধর্মে ফিরে আসতে বললে তাতে রাজি না হলে তিনি আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন।
অর্পনের দাবি- ধর্মান্তরিত হবার পর তার বাবা ওমানেও একই ধরনের অভিযোগ দিয়েছিলেন কিন্তু ওমানের সরকারি অফিস তা গ্রহণ করেনি। উল্টো তার বাবাকে সতর্ক করে বলেছেন, ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করায় যদি অর্পণকে কোন ধরনের মিথ্যে হয়রানি করা হয় বাবা সুভাষের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
অর্পণ বলেন, তিনি নারায়ণ হাট থেকে বিয়ে করেছেন তার স্ত্রীর নাম তাহরিমা তারান্নুম মীম। তিনি কখনো নিখোঁজ ছিলেন না। একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকুরি করেন। বায়েজিদ থানার অক্সিজেন এলাকয় সপরিবারে বসবাস করেন। বাবা ছাড়া পরিবারের অন্য সদস্য ও আত্মীয় স্বজনের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।
গত বুধবার সন্ধ্যায় হাটহাজারীর সুভাষ শীল দৈনিক পূর্বকোণ কার্যালয়ে এসে দাবি করেন-তার ছেলে অর্পণ ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে ‘জঙ্গি’ গ্রুপে যোগ দিয়েছেন। ২০১৪ সাল থেকে নিখোঁজ রয়েছেন। ধর্মান্তরিত হবার পর তার নাম দিয়েছেন আবদুর রহমান আবদুল্লাহ।
গতকাল শনিবার সুভাষ শীলের সাথে যোগাযোগ করা হলে জানান, আমার সাথে অর্পনের যোগাযোগ বন্ধ তাই আমি ধারণা করেছি সে ‘জঙ্গি’ গ্রুপে যোগ দিয়েছে।

x

Check Also

১৫ ডিসেম্বর ষ্টীলমিলস্ স্কুলের পুনর্মিলনী

দেশের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ চিটাগাং স্টীল মিলস হাই স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের পুনর্মিলনী আগামী ১৫ই ডিসেম্বর ...