ঝিনাইদহে ভালোবাসা দিবস ও বসন্ত উৎসবে অর্ধ কোটি টাকার ফুল বিক্রি হবে !

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ
ভালোবাসা প্রকাশের প্রতিক মহামূল্যবান ফুলটি অগনিত তরুন তরুনী, যুবক-যুবতীসহ সকল বয়সের মানুষের হাতে তুলে দিতে ব্যান্ত সময় পার করছে ঝিনাইদহের ফুল চাষীরা। এবার ভালবাসা দিবস ও বসন্ত উৎসব ঝিনাইদহ থেকে প্রায় অর্ধ কোটি টাকার ফুল দেশের বিভিন্ন স্থানে রফতানি করা হয়েছে বলে ফুল সাথে জড়িত কৃষক ও স্থানীয় কৃষি অফিস জানিয়েছে।

২১ ফেব্রুয়ারী উপলক্ষে ১৭ ফেব্রুয়ারী থেকে আরো ৫০ লাখ টাকার ফুল বিক্রি হবে বলে জানিয়েছে কৃষক ও ফুল ব্যবাসীরা। প্রতিবছর বিভিন্ন জাতীয় দিবস ও ভালবাসা দিবসের মতো দিনগুলোতে ফুলের অতিরিক্ত চাহিদা থাকে। আর দেশের এই চাহিদার সিংহভাগ যোগান দিয়ে থাকে এই ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের এলাকার ফুল চাষীরা।

ঝিনাইদহ ও কালীগঞ্জ কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ বছর জেলার সদর,কালীগঞ্জ ও শৈলকুপা, কোটচাদপুর উপজেলায় প্রায় ৭শ হেক্টর জমিতে চাষ করা হয়েছে বিভিন্ন জাতের গাদা,গোলাপ, গ্লাডিয়াস, রজনীগন্ধ্যাসহ নানা জাতের ফুল। শুধু কালীগঞ্জ উপজেলায় চাষ হয়েছে প্রায় সাড়ে ১শ হেক্টর জমিতে ফুল চাষ ।

ঝিনাইদের বিভিন্ন উপজেলায় সবচেয়ে বেশি চাষকরা হয় বিভিন্ন রঙের গাদা ফুল। খরচ শেষে লাভ বেশি হওয়ায় কৃষকরা ফুল চাষে আগ্রহী হচ্ছেন। জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার লাউতলা, বালিয়াডাঙ্গা, কোলাবাজার, তিল্লা, সিমলা, রোকনপুর, গোবরডাঙ্গা, পাতবিলা, পাইকপাড়া, তেলকুপ, গুটিয়ানী, কামালহাট, বিনোদপুর, দৌলতপুর, বারবাজার, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার, মধুহাটি,গান্না বাজারসহ উপজেলার বিভিন্ন মাঠের পর মাঠে চাষ করা হয়েছে গাঁদা, রজনীগন্ধ্যা, গোলাপ ও গল্লাডিয়াসসহ নানা জাতের ফুল। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি গাধা ফুল,গল্লাডিয়াস ও রজনীগন্ধার চাষ হয় কালীগঞ্জে বালিয়াডাঙ্গা এলাকায় সদর উপজেলার গান্না এলাকায়। এ কারনে সবাই এখন এই এলাকাকে ফুলনগরী হিসেবে পরিচিত।

বসন্ত উৎসব ও ভালবাসা দিবস উপলক্ষে এক ঝুপি গাদা ফুল ৮০-১০০ টাকা দরে, রজনীগন্ধ বিক্রি হয়েছে ১ কেজি ১০০ টাকা ও পিস ৩/৪ টাকা আর গল্লাডিয়াস ১ পিস ৮ টাকা দরে বিক্রি করা হয়েছে। রবিবার বিকালে ও সোমবার সকাল এ এলাকার উৎপাদিত ফুল দূরপাল্লার পরিবহনে ভরে চলে যাচ্ছে ঢাকা, বরিশাল, চট্রগ্রাম, সিলেটসহ দেশের বড় বড় শহরগুলোতে পাঠানো হয়েছে।

কালীগঞ্জের লাউতলা , বালিয়াডাঙ্গা বাজার ও মেইন বাসষ্ট্যান্ডে দেখা যায়, ফুল চাষীরা তাদের ক্ষেতের উৎপাদিত ফুল ভ্যান, স্কুটার ও ইঞ্জিন চালিত বিভিন্ন পরিবহন যোগে নিয়ে আসে। এলাকার বিভিন্ন স্থান থেকে আগত ফুলচাষীরা জানান, সারা বছরই তারা ফুল বিক্রি করে থাকেন। তবে প্রতিবছর বিভিন্ন দিবস ও ভালবাসা দিবস ফুলের অতিরিক্ত চাহিদা থাকে। এ সময় দাম ও থাকে ভালো।

ফুল ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম জানান, প্রতিদিনই উপজেলার বিভিন্ন ফুলচাষীরা ফুল নিয়ে কালীগঞ্জ মেইন বাসষ্ট্যান্ডে আসে। এর পর এখান থেকে দুরপাল্লার বাসে-ট্রাকে ফুল দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়। তিনি আরো জানান, প্রতিদিন এখান থেকে ১০ থেকে ২০ লাখ টাকার ফুল পাঠানো হলেও বসন্ত ও ১৪ ফেব্রুয়ারী উপলক্ষে প্রায় ৫০ লাখ টাকার ফুল পাঠানো হয়েছে। তিনি আরো জানান, আগামী ২১ ফেব্রুয়ারী উপলক্ষে আরো প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার ফুলেরর অর্ডার পাওয়া গেছে। যা ১৭ ফেব্রুয়ার থেকে পাঠানো শুরু হবে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

x

Check Also

শহীদ আলহাজ্ব আহমদুল হক চৌধুরী চেয়ারম্যান স্মৃতি সংসদের ঈদবস্ত্র উৎসব সম্পন্ন

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার মাটি ও মানুষের নয়নমণি সাতকানিয়া ৬নং এওচিয়া ইউনিয়ন পরিষদের বারবার নির্বাচিত সফল ...