লালদীঘির মাঠে ২৬ -২৮ ফেব্র“য়ারি একুশ উৎসব একুশের ভাষা শহীদ ও সৈনিকদের পুনঃবাসন জরুরী

চট্টগ্রাম একুশ উৎসব পরিষদের উদ্যোগে “২১ বাঙালির প্রেরণা-বাংলা আমাদের মায়ের ভাষা” শীর্ষক স্লোগানকে ধারণ করে আগামী ২৬ ফেব্র“য়ারি থেকে ২৮ ফেব্র“য়ারি পর্যন্ত তিন দিন ব্যাপী ঐতিহাসিক লালদীঘির ময়দানে একুশ উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষে চট্টগ্রাম একুশ উৎসব পরিষদের মতবিনিময় সভায় বক্তারা বলেছেন একুশের চেতনায় এদেশে স্বাধীনতা এসেছে। প্রতিষ্ঠিত হয়েছে স্বাধীন সার্বভৌমত্ব বাংলাদেশ উল্লেখ করে বক্তারা আরো বলেন, রাষ্ট্রভাষা বাংলা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পেয়েছে, এটি বাঙালিদের জন্য গৌরবের অধ্যায়। বক্তারা বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের সরকার সম্মানিত করে চলেছেন পাশাপাশি ভাষা শহীদ ও ভাষা সৈনিকদের সরকারীভাবে পুনঃবাসন ও সম্মানিত করার জন্য আহ্বান জানিয়ে বক্তারা বলেন, প্রতিটি বাঙালিদের শপথ নিতে হবে একুশ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশ গড়ার লক্ষ্যে সকল দেশপ্রেমিক বাঙালিদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
গত ১২ ফেব্র“য়ারি নগরীর বহদ্দারহাটস্থ মেরিট বাংলাদেশ স্কুল মিলনায়তনে চট্টগ্রাম একুশ উৎসব পরিষদের চেয়ারম্যান ড. মুহাম্মদ সানাউল্লাহর সভাপতিত্বে ও সমন্বয়কারী সাংবাদিক আলী আহমেদ শাহীনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সৈয়দা রিফাত আক্তার নিশু।
তিনদিন ব্যাপী একুশ উৎসবের সার্বিক কর্মসূচি তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম একুশ উৎসব পরিষদের প্রধান সমন্বয়কারী সাংবাদিক দিদার আশরাফী। এতে বক্তব্য রাখেন জাসদ উত্তর জেলার সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ভানু রঞ্জন চক্রবর্ত্তী, মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমেদ, রাজনীতিক এ.কে.এম. মহিউদ্দিন আজম তালুকদার, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সাংবাদিক আলী আহমেদ শাহীন। বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা এস.এম. আবু তাহের, মুক্তিযোদ্ধা এস.এম. নুরুল আমিন, মুক্তিযোদ্ধা এম এ সালাম, মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান মিলন, মুক্তিযোদ্ধা হাজী সিরাজুল ইসলাম, অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম খান, সংগঠক মোহাম্মদ এজাহারুল হক, নারী সংগঠক সোমিয়া সালাম, সাংস্কৃতিক সংগঠক প্রণবরাজ বড়–য়া, শিব্বির আহমেদ ওসমান, রোজি চৌধুরী, ড. দুলাল কান্তি চৌধুরী, ছেনোয়ারা সুলতানা জুলেখা বেগম, কাজী মোহাম্মদ আইয়ুব, হারুন উর রশিদ, সমীরণ পাল, আসিফ ইকবাল, বিপ্লব দাশ গুপ্ত, নজরুল ইসলাম মোস্তাফিজ, এনামুল হাসান, সৈয়দ জাহিদ হোসেন, হারুন উর রশিদ, গিয়াস উদ্দিন, জামাল উদ্দিন, এ.কে.এম. মজিবুর রহমান, রিয়াজ উদ্দিন, রহমান খলিল, আবুল কাশেম, মহিউদ্দিন পারভেজ, দিলীপ সেনগুপ্ত, ছোটন নাথ প্রমুখ।
প্রসঙ্গত অনুষ্ঠিত্য ২১ উৎসবে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন সংগীত ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতা। একুশের স্মৃতিচারণ, আলোচনা সভা, নাটক, শিশু-কিশোরদের সংগীতানুষ্ঠান, নৃত্যসহ চট্টগ্রামের খ্যাতিমান শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করবেন এবং প্রতিদিন ১০জন করে মুক্তিযোদ্ধাসহ স্ব-স্ব ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখায় ৩০জনকে বিশেষ সম্মাননা প্রদানসহ ২৬ ফেব্র“য়ারি একুশ উৎসব মঞ্চে উপস্থিত থাকবেন দেশবরেণ্য অভিনেতা আবুল হায়াত। ২৭ ফেব্র“য়ারি দেশবরেণ্য অভিনেতা ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব চিত্রনায়ক ফারুক ২৮ ফেব্র“য়ারি খ্যাতিমান চলচ্চিত্র অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান। প্রসঙ্গত বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও বাংলা চলচ্চিত্রের খ্যাতিমান চিত্র পরিচালক প্রয়াত আলমগীর কুমকুমের জন্ম বার্ষিকীতে কেক কাটার মধ্যদিয়ে মতবিনিময় সভা সমাপ্তি ঘটে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

x

Check Also

আষাঢ়ের রোদেলা সকালের হালকা উত্তাপে চট্টগ্রামের প্রধান ঈদগাহ জামাত জমিয়তুল ফালাহ-তে লাখো মুসল্লির পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়

আষাঢ়ের রোদেলা সকাল।  হালকা গরম।  স্বস্তিদায়ক আবহাওয়ার মধ্যে যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য আর বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে ...