পরিচালকের বিরুদ্ধে হলিউড নায়িকার হয়রানির অভিযোগ

‘আ ওয়াক ইন দ্য ক্লাউডস্’ ছবির শুটিংয়ের সময় ধারাবাহিক ভাবে তার শরীর এবং মনের উপর অত্যাচার করেছেন পরিচালক অ্যালফনসো আরাউ৷

এমন অভিযোগ এনেছেন ছবির অভিনেত্রী ডেবরা মেসিং৷ ৪৮ বছর বয়সি এই অভিনেত্রী জানিয়েছেন তার প্রথম হলিউড ছবিতে অভিনয় করার সময় বেশ উত্তেজনা ছিল৷ কারণ, এই ছবিতে তার উল্টোদিকে অভিনয় করেছিলেন ‘ম্যাট্রিক্স তারকা’ কিয়ানু রিভস্৷ কিন্তু সেই উত্তেজনা খুব দ্রুত বদলে যায় কতগুলো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটায়৷ প্রথম দিনের শুটিংয়ে যখন তিনি এবং রিভস্ একটি নাটকীয় চুম্বন দৃশ্যে অভিনয় করছিলেন, ঠিক তখনই পরিচালক আরাউ মন্তব্য করেন, ‘কত দ্রুত সেটে একজন প্লাস্টিক সার্জন আনা সম্ভব? এই নারীর নাক আমার ছবিটাকে তো নষ্ট করে দেবে৷’ এই মন্তব্য শোনার পর খুব দ্রুত দৃশ্যের শুটিং শেষ করে ডেবরা মেসিং তার ভ্যানিটি ভ্যানে চলে যান এবং কান্নায় ভেঙে পড়েন৷

তিনি বলেন, ‘আমার খুবই খারাপ লাগছিল৷ নিজেকে জঞ্জাল মনে হচ্ছিল৷ লজ্জায় প্রায় মরে যাচ্ছিলাম৷’ দ্বিতীয় দিনের শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা আরও খারাপ৷ মেসিং জানান, সেটে আসতেই তাকে নাকি বলা হয়েছিল একটি নগ্ন দৃশ্যে অভিনয় করতে হবে আজ৷ যদিও তাকে আগে বলা হয়েছিল এমন কোনও দৃশ্যই ছবিতে থাকবে না৷ এরপর তিনি সরাসরি পরিচালকের কাছে জানতে চাইলে পরিচালক অ্যালফনসো আরাউ বলেন, ‘আমি পরিচালক৷ এটা আমার ছবি৷ তোমার কাজ হল ক্যামেরার সামনে নগ্ন হয়ে দাঁড়িয়ে সংলাপ বলা৷ আমার কাছে তোমার কৃতজ্ঞ থাকা উচিত যে, এই চরিত্রটিতে অভিনয় করার সুযোগ তুমি পেয়েছ৷’ শেষ পর্যন্ত ডেবরা মেসিং সে দিন নগ্ন হয়ে সংলাপ বলেন, কিন্তু ছবির ফাইনাল কাট দেখে তিনি স্তম্ভিত হয়ে যান৷ কারণ, সেই দৃশ্যে শুধুমাত্র দেখা গিয়েছে তার পিঠটুকু৷

তিনি বলেন, ‘গোটা ব্যাপারটাই একজন পুরুষের ক্ষমতা দেখানোর খেলা৷ কী উদ্দেশ্যে? আমাকে ছোটো করা, আমার দম্ভ এবং ক্ষমতাকে নগ্ন করে দেওয়া৷ বুঝিয়ে দেওয়া যে, তোমাকে আমি শাসন করছি৷’

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

x

Check Also

দ্বৈতগানে কণ্ঠ দিলেন ন্যান্সি

সংগীতশিল্পী নাজমুন মনিরা ন্যান্সি সম্প্রতি দুটি দ্বৈতগানে কণ্ঠ দিয়েছেন। গানের শিরোনাম ‘বুঝে নিও’ ও ‘জলরং’। ...