`ব্যাটিংয়ের ধরন পাল্টালে আমি আর সাকিব থাকব না‍‍`

বাজে শট খেলে সাকিবের আউট হওয়ার উদাহরণ আছে অনেক। শেষবার যে দৃশ্যটা ধরা পড়ল ভারতের বিপক্ষে হায়দরাবাদ টেস্টে। ব্যাটিং নিয়ে নানাভাবে সমালোচিত হলেও নিজের ব্যাটিংয়ের ধরনে পরিবর্তন আনবেন না বলে জানিয়েছেন তিনি।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়েলিংটনে ২১৭ রানের ইনিংস খেলার পর বাজে শটে আউট হয়েছিলেন সাকিব। শনিবারও দলের হয়ে গুরুত্বপূর্ণ ৮২ রান করে বাজে বলে আউট হলেন তিনি। দলের কঠিন পরিস্থিতিতে এই ধরনের শট খেলে এর আগেও সাকিব আউট হয়েছেন অনেকবার। তার আউটের পর পরই বাংলাদেশ বিভিন্ন সময় ম্যাচ থেকে ছিটকে গিয়েছে। তিনিও হয়েছেন নানা ভাবে সমালোচিত। এত কিছুর পরও নিজের ব্যাটিংয়ের ধরনে পরিবর্তন আনবেন না বলে জানিয়েছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার।

শনিবার ম্যাচের তৃতীয় দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রতিনিধি হয়ে আসেন সাকিব। সেখানেই নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেন বাংলাদেশে এই ক্রিকেটার, ‘ব্যাটিং করার সময় আসলে এতকিছু মাথায় কাজ করে না। ব্যাটিং করতে থাকি।  যে শট খেলতে ভাল লাগে, ওটাই খেলতে থাকি। কখনও সফল হই, কখনও হই না। এগুলো নিয়ে খুব বেশি চিন্তা করার আছে বলে আমার কাছে মনে হয় না। কারণ এটা আমার স্বাভাবিক খেলা। আমি এভাবেই খেলতে পছন্দ করি।’

ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বিস্ফোরক ব্যাটিং করে অভ্যস্ত। সাদা পোশাকে নামতেই তার ব্যাটিংয়ের ধরন উল্টো হয়ে যায়। বাংলাদেশের বিপক্ষেও তিনি তার প্রমাণ রেখেছেন। গ্রাউন্ড শট খেলে ২৪ চারে কোহলি চতুর্থ ডাবল সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছেন। কোহলির উদহারণ টেনে প্রশ্ন করতেই সাকিব মুখে কুলুপ আটলেন, মাথা নাড়লেন কেবল। উত্তর না দিয়ে হয়তো বেঝাতে চাইলেন ব্যাটিংয়ের ধরন পরিবর্তনের কোনও ইচ্ছেই নেই তার!

শনিবার ৮২ রান খেলার পথে সাকিব বাউন্ডারি মেরেছেন ১৪টি। বল খেলেছেন ১০৩টি। এই ১৪টি চারের বেশির ভাগই এসেছে ওভার দ্য টপে খেলেই। অশ্বিনের বলে আউট হওয়ার আগে বেশ কয়েকবার ভাগ্য সুপ্রসন্ন হয়েছিল সাকিবের। কিন্তু ১০৩ নম্বর বলটা একটু ভেতরে ঢুকে যাওয়াতে শেষ রক্ষা হয়নি সাকিবের। নিজের ইনিংস প্রসঙ্গে তিনি বললেন, ‘আপনি যদি আমার পুরো ইনিংস দেখেন আমি শটস খেলেছি। ওইটা (যে শটে আউট) আমি ভালোভাবে খেলতে পারিনি। এটাই বলতে পারি। এছাড়া ইতিবাচক মনোভাব নিয়েই আজ আমি ব্যাটিং করেছি। আমি যেভাবে শেষ পাঁচ-ছয় বছর খেলছি, ওখান থেকে আমি আমার খেলার ধরন পরিবর্তন করতে চাই না।’

ভারতের বিপক্ষে এতদিন পর্যন্ত একটি হাফসেঞ্চুরিও ছিল না সাকিবের। অবশেষে শনিবার ৮২ রানের ইনিংস আসে কোহলিদের বিপক্ষে। অশ্বিনের বলে ওভাবে আউট না হলে সেঞ্চুরিটাও পূর্ণ হতে পারতো। সাকিব অবশ্য বললেন অন্যভাবে, ‘এত কিছু চিন্তা করে ব্যাটিং করি না। তবে আউট না হলে ওই সময় আমার ১০০টা হয়ে যেত। কিংবা দলের জন্য বেশিক্ষণ ব্যাটিং করার সুযোগ পেতাম। সেটা অবশ্যই ভালো হতো। যেটা হয়নি, সেটা নিয়ে ভেবে আর লাভ নেই।’

ব্যাটিংয়ের ধরন পরিবর্তন হয়ে গেলে নিজের সত্ত্বাকে বিসর্জন দেওয়া হবে বলে মনে করেন সাকিব, ‘আমি দলের প্রয়োজনে সব সময় অবদান রাখতে চাই। নিউজিল্যান্ডে আমি ২১৭ রান করেও খুশি ছিলাম না। ওখানে আমি আরও রান করতে চেয়েছিলাম। আমি আমার খেলার ধরণ কখনোই বদলাবো না। আমি জানি, যদি কখনো পরিবর্তন করি, তাহলে আমি সাকিব থাকব না। আমার ভাবনটা ঠিক এমনই।’

 

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

x

Check Also

সরকারের জোর কূটনৈতিক প্রচেষ্টার ফলেই রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বিশ্ব জনমত সৃষ্টি হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

  ২৩ নভেম্বর, ২০১৭ (বাসস) : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আন্তর্জাতিক মহলে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে ...