`টেস্টে হিসেব উল্টে দিতে পারে বাংলাদেশ‍‍`

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে টেস্টে যারা একদিনে সাড়ে তিনশোর ওপর রান তুলেছে – তাও আবার সারা দিনে ওভারপিছু সাড়ে চার রানেরও বেশি গড় রেখে – সেই বাংলাদেশ দলকে অন্তত কিছুতেই ছোট করে দেখতে রাজি নন ভারতের অধিনায়ক ভিরাট কোহলি। হায়দ্রাবাদে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে একমাত্র টেস্টের সিরিজ শুরুর আগে প্রাক-ম্যাচ সাংবাদিক সম্মেলনে অন্তত এমনটাই দাবি করেছেন কোহলি। বলেছেন বাংলাদেশের ব্যাটিংকে তারা রীতিমতো সমীহ করছেন।

ভারত এখন আইসিসি-র টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে বিশ্বের এক নম্বর টেস্ট দল। সেই জায়গায় বাংলাদেশ দলের অবস্থান নয় নম্বরে। কিন্তু র‍্যাঙ্কিংয়ের হিসেব অনুযায়ী টেস্টটা ভারতের জন্য যেমন একপেশে হওয়ার কথা – আসলে ব্যাপারটা আদৌ তেমন হবে না বলেই ভারত ধরে নিচ্ছে।

“প্রথম কথা বাংলাদেশ দলে বেশ কয়েকজন কোয়ালিটি ক্রিকেটার আছে। তা ছাড়া টেস্ট ক্রিকেটের ফর্ম্যাটটাই এমন, একটামাত্র সেসনে পুরো ম্যাচের মোড় ঘুরে যেতে পারে, আর বাংলাদেশ দলে বেশ কয়েকজন সেই ধরনের ক্ষমতা রাখে”, রীতিমতো সমীহের সুরে বলেছেন ভারতীয় দলের ক্যাপ্টেন। “আসলে ওরা টেস্ট ম্যাচ তুলনায় অনেক কম খেলে বলেই টেস্ট জেতার মানসিকতাটা অত ভাল তৈরি হয়নি। ম্যাচ প্র্যাকটিস একটা আলাদা জিনিস, আপনি যতই নেটে অনুশীলন করুন তার সঙ্গে ম্যাচ খেলার কোনও তুলনা হয় না।”

“আর জেতার ওই টেম্পারামেন্টটা তৈরি হয় ম্যাচ খেলতে খেলতেই”, টেস্টে বাংলাদেশ দলের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে এভাবেই বিশ্লেষণ করেছেন ভিরাট কোহালি।

“অথচ ওরা ওয়ান-ডে ক্রিকেট অনেক বেশি খেলে বলে দারুণ একটা ওয়ান-ডে টিম দাঁড় করিয়ে ফেলেছে। ওদের ওয়ান-ডে টিমটা সেট করে গেছে, আর বিশ্বের সব দলকেই বোধহয় ওরা ওয়ান-ডেতে হারিয়েছে”, আরও যোগ করেছেন তিনি। টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার প্রায় সতেরো বছর পর বাংলাদেশ দল ভারতের মাটিতে এই প্রথম কোনও টেস্ট ম্যাচ খেলতে চলেছে। মুহুর্তটাকে তাই ‘ঐতিহাসিক’ বলেই মনে করছেন কোহলিও।

তিনি আরও বলেছেন, “আমরা তো এর মাঝে কতবার বাংলাদেশে টেস্ট খেলতে গেছি। কিন্তু বাংলাদেশ কখনও ভারতে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে আসেনি, এটা মাথায় আসেনি। ফলে এটাকে তো ঐতিহাসিক মুহুর্ত তো বলতেই হবে!”অন্য দিকে বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম জানিয়েছেন, ‘ইতিহাসের চাপ’টা মাথা থেকে সরিয়ে খোলা মনে একটা ভাল টেস্ট খেলাই তাদের উদ্দেশ্য।

“আমাদের আসলে প্রতিটা সেশন ধরে ধরে ভাল খেলার চেষ্টা করতে হবে। ব্যাটিং অর্ডারের প্রথম সাতজন ব্যাটসম্যানকেই রান পেতে হবে। নিউজিল্যান্ড সিরিজে যারা ফর্মে ছিল না, তাদেরও ফর্মে ফেরাটা জরুরি”, জানিয়েছেন তিনি। হায়দ্রাবাদে উপ্পল স্টেডিয়ামের পিচ দেখার পর মুশফিকুর রহিম ধারণা করছেন, টেস্টের দ্বিতীয় বা তৃতীয় দিন থেকেই সেখানে বল টার্ন করতে শুরু করবে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

x

Check Also

চীনে পৌঁছলেন বাংলাদেশের সুন্দরী জেসিয়া

এক মাসের অভিযাত্রায় গতকাল ১৯ অক্টোবর দিবাগত রাত ১২টা ৫০ মিনিটে ঢাকা থেকে চীনের উদ্দ্যেশ্যে ...