ট্রাম্পের বিরুদ্ধে একজোট ফেসবুক, অ্যাপল সহ বিশ্বখ্যাত কোম্পানিগুলো

ফেসবুক, গুগল, অ্যাপলসহ বিশ্বখ্যাত ৯৭টি কোম্পানি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিবাসী নিষিদ্ধ করার আদেশের নিন্দা জানিয়ে আদালতে আরজি দাখিল করেছে। এর মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানগুলো এ নীতির বিরুদ্ধে তাদের অবস্থান আরো জোরদার করল।
স্থানীয় সময় গত রোববার সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের নবম আপিল সার্কিট আদালতে দাখিল করা আরজিতে অর্থনীতি ও সমাজের জন্য অভিবাসীদের অবদানের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়। আগামী সপ্তাহের শুরুর দিকে এ আরজিটি দাখিল করার পরিকল্পনা ছিল কোম্পানিগুলোর, তবে বিষয়টির ওপর আদালতের স্থগিতাদেশের পর প্রশাসনের নতুন করে তৎপর হয়ে ওঠায় এটি এখনই করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিষয়টির সাথে সংশ্লিষ্ট একজন।
আরজিতে আরো আছে অনলাইন শপিং সাইট এআরবিএনবি, প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইন্টেল ও স্ন্যাপ, বিনোদন প্রতিষ্ঠান নেটফিক্স, অনলাইনভিত্তিক যাত্রী পরিবহন কোম্পানি উবার, ফ্যাশন কোম্পানি লেভি স্ট্রাউস অ্যান্ড কোং (লেভিস) প্রভৃতি।
প্রতিষ্ঠানগুলোর আরজিতে বলা হয়েছে, ‘জাতির সর্বাপেক্ষা বৃহৎ আবিষ্কারের বেশির ভাগই অভিবাসীদের হাতে হয়েছে। তাদের হাতেই দেশের সবচেয়ে উদ্ভাবনী ও শীর্ষস্থানীয় কোম্পানির অনেকগুলো গড়ে উঠেছে।’ কোম্পানিগুলো বলেছে, ‘দুষ্কৃতিকারীদের হাত থেকে নিজেদের নিরাপদ রাখার বিষয়টি দীর্ঘকাল ধরেই যুক্তরাষ্ট্রে স্বীকৃত। তবে এটি করা হয়েছে অভিবাসীদের স্বাগত জানানোর মৌলিক অঙ্গীকারকে অব্যাহত রেখেই। অভিবাসীদের অতীত পর্যালোচনাসহ অন্যান্য নিয়ন্ত্রণ অব্যাহত রেখেই এটি করা হয়েছে।’
গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের একজন জেলা জজ অস্থায়ীভাবে ট্রাম্পের অভিবাসী নিষেধাজ্ঞা আদেশ স্থগিত করেন। উদ্বাস্তু ও সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের সুযোগ বহাল হয় ওই রায়ের ফলে। এরপর ট্রাম্পের পক্ষে থেকে এ আদেশ পুনর্বহাল করার আপিল করা হয়। কিন্তু সেই আপিল ফেডারেল আদালতে খারিজ হয়।
ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশে অভিবাসী ও মুসলিম দেশের নাগরিকদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয়। ব্যবসায়ী মহল থেকেও আসে প্রতিবাদ। ট্রাম্পের অভিবাসন নীতির বিরুদ্ধে সবচেয়ে বেশি সোচ্চার হয়েছে প্রযুক্তিভিত্তিক কোম্পানিগুলো।
এর আগে ব্লুমবার্গ নিউজের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, মাইক্রোসফট, অ্যালফাবেটসহ বেশ কিছু বিখ্যাত প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠান অভিবাসন নীতির প্রতিবাদ জানিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে একটি খোলা চিঠি লেখার পরিকল্পনা করছে। চিঠির একটি খসড়ায় বল হয়েছে, ‘আমাদের অভিবাসন নীতিতে নিরাপত্তা ও দেশকে নিরাপদ রাখার বিষয়ে আপনার লক্ষ্যের সাথে আমরা একমত। কিন্তু আপনার সাম্প্রতিক নির্বাহী আদেশ অনেক ভিসাধারীকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে যারা এখানে কঠোর পরিশ্রম করে আমাদের সফলতায় ভূমিকা রাখছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন।’
ইতোমধ্যেই যাত্রী পরিবহন সংস্থা উবারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ট্রাভিস কালানিক ট্রাম্পের উপদেষ্টা পরিষদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। যাত্রী ও ড্রাইভারদের সমালোচনার মুখে তিনি ট্রাম্প প্রশাসনের পদ ছাড়েন। এ ছাড়া ট্রাম্পের বাণিজ্যবিষয়ক উপদেষ্টা পরিষদে তার থাকা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও নিন্দার ঝড় উঠেছে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

x

Check Also

পায়ে বল লাগায় ‘অদ্ভুত’ রান আউটের শিকার জেসন রয়

জেসন রয়ের ভীষণ আফসোস হচ্ছে নিশ্চয়ই! কাল টন্টনে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ইংলিশ ...