ভবিষ্যতে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহ হবে উন্নয়নের কেন্দ্রবিন্দু : এলজিআরডি মন্ত্রী

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, নিত্য-নতুন উদ্ভাবনী কৌশল প্রয়োগ ও চর্চা করে নাগরিক সেবার গুণগত মান অর্জনের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহ উন্নয়নের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হবে।
সরকার বিকেন্দ্রীকরণের মাধ্যমে নাগরিক সেবার মান বৃদ্ধি করে গ্রামীণ জনপদে উন্নয়নের সুফল ছড়িয়ে দিতে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহকে আরও কার্যকরী ও গতিশীলভাবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা নিয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
মন্ত্রী রোববার রাজধানীর জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরে উপজেলা গভর্ণ্যান্স প্রজেক্ট (ইউজেডজিপি)-এর উদ্যোগে আয়োজিত ‘উদ্ভাবনী উৎসাহিতকরণ কর্মশালা ও সম্মাননা প্রদান’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
ঢাকা বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার হেলালুদ্দীন আহমদ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন- স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আবদুল মালেক, উপজেলা গভর্ণ্যান্স প্রজেক্ট (ইউজেডজিপি)-এর প্রকল্প পরিচালক সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্ত্তী, ইউজেডজিপি’র ঢাকা বিভাগের বিভাগীয় ফ্যাসিলিটেটর ড. সোহেল ইকবাল এবং ঢাকা বিভাগের স্থানীয় সরকার পরিচালক শেখ মুজিবর রহমান।
মন্ত্রী বলেন, আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ব্যবহারের ফলে মানুষের চিন্তা-চেতনায় এক বৈপ্লবিক পরিবর্তন এসেছে। এর সাথে সমন্বয় রেখে নাগরিক সেবা প্রদানেও নতুনত্ব আনতে হবে। উপজেলা পরিষদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালনে উদ্ভাবনী শক্তি ও কৌশল প্রয়োগ করে সেবা কার্যক্রমে নতুনত্ব এনে উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে হবে।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার স্থানীয় সরকার ব্যবস্থার সকল স্তরে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা চালু করেছে। জনগণের ভাগ্য উন্নয়নে বর্তমান সরকার জনগণের ক্ষমতায়ন ও প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণের মাধ্যমে উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে।
স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার স্থানীয় সরকার ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে উন্নয়নের সকল কর্মকান্ডে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের ধারাবাহিকভাবে আরও ক্ষমতায়ন করবে।
মন্ত্রী আরও বলেন, উপজেলা গর্ভণ্যান্স প্রজেক্ট এর মাধ্যমে উপজেলা পরিষদ আরও সক্ষমতা অর্জন করেছে। সরকারী-বেসরকারী বিভিন্ন দপ্তর ও সংস্থাসমূহের সমন্বয়ের মাধ্যমে উপজেলা পরিষদ এলাকার জনপদের উন্নয়নে আরও কাজ করবে। রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে উচ্চগতির ইন্টারনেট সংযোগের ধারাবাহিকতায় ইউনিয়ন পরিষদেও ইন্টারনেট সংযোগের কথা তিনি উল্লেখ করেন।
পরে মন্ত্রী ‘উদ্ভাবনী উৎসাহিতকরণ কর্মশালা ও সম্মাননা প্রদান’ অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন এবং ১০টি উপজেলার চেয়ারম্যান ও নির্বাহী কর্মকর্তাদের সম্মাননা প্রদান করেন।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

x

Check Also

চিটাগং অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের বিজয় দিবসের কর্মসূচি ঘোষনা

ডেক্স রিপোট:১৫ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে চিটাগং অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের এবং অনলাইন পত্রিকা ক্রাইম ...