মেকওভার | দিনের পার্টি মেকআপ কেমন হবে?

অনুষ্ঠান মানেই ভারী গহনা, জমকালো পোশাক আর ভরপুর মেকআপ। বিশেষ করে অনুষ্ঠানের কথা উঠলেই আপনাকে কিছুটা মনোযোগী হতে হয় মেকআপ নিয়ে। এই সময়ের মেকআপ নিয়ে এবারের আয়োজন।

অনুষ্ঠান বা যেকোনো নিমন্ত্রণে ভারী সাজের চেয়ে হালকা সাজে নিজেকে উপস্থাপন করুন। বেনারসি বা কাতান বাদ দিয়ে বেছে নিতে পারেন সুতি, কোটা তাঁত, অ্যান্ডি কটন বা হালকা ধরনের জামদানি কাপড়। আবার শাড়িই পড়তে হবে এমন কোনো কথা নেই। পরিবেশ, অবস্থা, আয় ও আপনার রুচি অনুযায়ী কাপড় পড়ুন। কিন্তু অবশ্যই তা যেন আপনার ব্যক্তিত্বকে বজায় রাখে।

সাজের ক্ষেত্রে হালকা ধরনের মেকআপই আপনাকে অনন্য সাধারণ করে তুলবে। আর যারা নিয়মিত ত্বক এবং চুলের যত্ন নেন তাদের জন্য তো কোনো চিন্তাই নেই। শুধুমাত্র মুখটা ভালো করে ধুয়ে হালকা একটু ফেস পাউডার, কাজল আর হালকা রঙের লিপস্টিক যথেষ্ট। পার্টির আমেজ আনতে চিরচেনা কাজলই একটু গাঢ় করে আপনার সুন্দর চোখে বুলিয়ে নিন। আপনার পোশাকের সঙ্গে মিল রেখে নানা রঙের পেন্সিল ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু সবার আগে লক্ষ রাখবেন কোন রং আপনাকে মানায়। চোখের বাইরে কাজল দিলে মাশকারা ও আইলাইনার না দিলেও চলবে। তবে অনুষ্ঠান যদি রাতের হয় তবে মাশকারা ও আইশ্যাডো ব্যবহার করুন। আপনার পোশাকের রঙের আইশ্যাডো ব্লেন্ড করেও দিতে পারেন। ভ্রু পেন ব্যবহার করুন আপনার নিজস্ব স্টাইলে। লিপস্টিকের ক্ষেত্রে প্রথমে একই রঙের লিপলাইনার দিয়ে ঠোঁট সুন্দর করে এঁকে নিয়ে লিপস্টিক দিয়ে ভরাট করে দিন। আপনি যদি গ্লসি পছন্দ করেন তবে এর উপরে নরমাল কালারের লিপগ্লস ব্যবহার করতে পারেন।

চুল আপনার সৌন্দর্যের অনেকখানি জায়গা জুড়ে আছে। তাই চুলের দিকে মনোযোগী হোন। বাড়িতে চুলের যত্ন করুন। আর অনুষ্ঠানের জন্য চুলের স্টাইল নির্ভর করবে আপনার পোশাকের উপর। আপনি যদি শাড়ি পড়েন তাহলে হাত খোঁপা করে চুলে ফুল লাগাতে পারেন। যা আপনাকে স্নিগ্ধতা এনে দেবে। আর আপনার চুল যদি ছোট হয় তাহলে ছেড়ে দিতে পারেন। এখন চলছে চুল রিবন্ডিং করার ট্রেন্ড। তাই অনুষ্ঠানের আগে ভালো হেয়ার আয়রন দিয়ে চুলটা সোজা করে নিতে পারেন। তবে অবশ্যই বার বার নয়। কারণ এতে চুলের ক্ষতি হয়। ভারী গহনা বাদ দিয়ে পড়তে পারেন মেটাল, অ্যান্টিক, রুপার গহনা। অন্যরকম লুকের জন্য মাটির গহনাও দারুণ। এ ছাড়া আপনি সাজতে পারেন ফুলের গয়না দিয়ে। কানে বেলি ফুলের দুল আর হাতে জড়াতে পারেন মালা। শাড়ি অথবা সালোয়ার-কামিজের সাথে পড়ুন চুড়ি অথবা ব্রেসলেট। আপনার কপালের টিপ তো আপনার হয়েই কথা বলবে। তাই পোশাকের সঙ্গে মিল রেখে টিপ পড়ুন। নিজের তৈরি কম্বিনেশনের টিপ হলে তো কথাই নেই। মনে রাখবেন, যাই পড়ুন না কেন তা যেন আপনার ব্যক্তিত্ব, রুচি, সময় ও পরিবেশের সাথে মানিয়ে যায়।

টিপস

# প্রথমেই আসে ফাউন্ডেশনের ব্যবহার। স্কিন টোনের সঙ্গে ম্যাচ করে ফাউন্ডেশন বেছে নেওয়া উচিত। নরম-উজ্জ্বল লুকের জন্য হালকা ফাউন্ডেশনই উত্তম।

# মেকআপে বাড়তি আকর্ষণ যোগ করতে যদি উইঙ্গড আইজ পেতে চান তবে প্রথমে চোখের উপরের পাতায় ল্যাশলাইন ধরে একদিক থেকে আর একদিকে আইলাইনার দিয়ে দিতে হবে।

# কারও যদি লিক্যুইড আইলাইনারে সমস্যা হয় তবে প্রথমে পেন্সিল দিয়ে টেনে তারপর লিক্যুইড ব্যবহার করা যেতে পারে।

# রাতে কোথাও পার্টিতে গেলে, ন্যাচরালি কুল-লুক মেকআপ ভালো লাগবে না। হাইলাইট ক্রিমের বদলে পিংক ব্লাশ অন লাগিয়ে নিলে খুব গ্ল্যামারাস লাগবে।

# পেন্সিল লাইনার দিয়ে আইল্যাশের ঠিক উপরে রেখা টানলে চোখ আরও উজ্জ্বল দেখাবে। এরপর দিতে হবে মাশকারা।

# মেকআপ নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করতে চাইলে চিকবোনে ক্রিমের জায়গায় আইশ্যাডো দিয়েও হাইলাইট করা যেতে পারে।

# সাধারণত এই মেকআপের সাথে পিঙ্ক বেশি মানায়, সাথে লাগানো যেতে পারে সিলভার গ্লস।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

x

Check Also

দরিদ্র রোগীরা স্বল্পমূল্যে কিডনি ডায়ালাইসিসের সুবিধা পাচ্ছে

জাতীয় কিডনি রোগ ও ইউরোলজি ইনিস্টিটিউট দেশের দরিদ্র রোগিদেরকে স্বল্পমূল্যে ডায়ালাইসিস সেবা প্রদান করবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রনালয়ের ...