নাস্তায় ৩০ শতাংশ ছাড় না দেয়ায় রেস্টুরেন্টে ভাঙচুর | হামলাকারীরা নিজেদের চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ কর্মী বলে পরিচয় দেয়

নাস্তার মোট বিলের উপর ৩০ শতাংশ কম রাখার আবদারে রাজি না হওয়ায় নগরীর চকবাজারের সাদিয়া’স কিচেন নামের একটি রেস্টুরেন্টে ভাঙচুর চালিয়েছে একদল যুবক। ভাঙচুরে জড়িত যুবকরা চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ কর্মী বলে রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ জানিয়েছে। গতকাল বিকেল সাড়ে চারটার দিকে সংঘটিত এ ঘটনায় রেস্টুরেন্টের সামনের কাচ, টেবিলের কাচ ও ফার্নিচার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ জানায়- চারজন যুবক রেস্টুরেন্টে নাস্তা করেন। এর মধ্য থেকে নাস্তা শেষ করে দুজন যুবক ক্যাশ কাউন্টারে এসে নিজেদের চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ কর্মী পরিচয় দিয়ে মোট বিলের উপর ৩০ শতাংশ কম রাখার আবদার জানান। কিন্তু রেস্টুরেন্টের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ কম রাখা সম্ভব হবে বলে তাদের জানানো হয়। এরপরই ওই যুবকরা তর্কাতর্কি শুরু করে। এতে টেবিলে বসে থাকা বাকি দুই যুবকও যোগ দেয়। তাঁরা রেস্টুরেন্টের স্টাফদের মারতে উদ্যত হয়। এসময় বাধা দিতে গেলে ওই যুবকদের হাতে নিজে শারীরিক ভাবে নাজেহাল হন বলে জানান রেস্টুরেন্টটির ব্যবস্থাপক মিসবাউল হক। তর্কাতর্কি ও হাতাহাতির এক পর্যায়ে বিল না দিয়েই যুবকরা নিচে নেমে যায় মিসবাউল হক বলেন, কিন্তু এর কিছুক্ষণ পর তারা আরো বেশ কিছু সংখ্যক যুবককে জড়ো করে এবং দোকানের সামনের গ্লাসে ভাঙ্‌চুর চালায়। ভিতরেও টেবিলের কাঁচ ভাঙচুর করা হয়। এছাড়া দোকানের ফার্নিচারও ক্ষতিগ্রস্ত হয় বলে দাবি মিসবাউল হকের। এদিকে, ভাঙচুর চলাকালীন রেস্টুরেন্টের সামনের সড়কে অবরোধ করা হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। ওই সময় রাস্তায় যান চলাচল কমে যায়। এ ঘটনায় অভিযোগ না পাওয়ায় কোনো ধরণের ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ। জানতে চাইলে চকবাজার থানার ওসি নুরুল হুদা আজাদীকে বলেন, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের ছেলেদের সাথে বিল নিয়ে ঝামেলা হওয়ার বিষয়টি শুনে সেখানে পুলিশ ফোর্স পাঠাই। রেস্টুরেন্ট স্টাফরা একজন ছাত্রকে মেরেছে বলে দাবি করেছে ছাত্রলীগ কর্মীরা। এ ঘটনায় তারা রেস্টুরেন্টের কাঁচ ভাঙচুর করেছে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আর রাস্তায় অবরোধের কোন ঘটনা ঘটেনি। তবে এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পান নি জানিয়ে ওসি বলেন- রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ একটি ফোনও করেনি। অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ওসি। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রেস্টুরেন্টের ব্যবস্থাপক মিসবাউল হক বলেন, হামলাকারী যুবকদের কারো নাম-পরিচয় আমরা জানিনা। তারা শুধু চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ বলে পরিচয় দিয়েছে। ঠিক মতো না চেনার কারণে অভিযোগ করে কি আর হবে বলেও মন্তব্য করেন মিসবাউল হক।

Check Also

চট্টগ্রামে চন্দনাইশে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬, আহত ১৫

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার হাশিমপুর কসাইপাড়া এলাকায় বৃহস্পতিবার বিকেলে চট্টগ্রামগামী হানিফ পরিবহন এর সঙ্গে বিপরীতমুখী দুইটি …

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply