“এসো সবাই মজা করি, নিজেদের সংস্কৃতি আঁকড়ে ধরি।” সাউথ এশিয়াটিক স্কুল এন্ড কলেজে শীতকালীন পিঠা উৎসব


প্রেসবিজ্ঞপ্তি-২০১৭
“এসো সবাই মজা করি, নিজেদের সংস্কৃতি আঁকড়ে ধরি।”-এই স্লোগানকে সামনে রেখে নগরীর পাহাড়তলীস্থ হালিশহর রোডে অবস্থিত সাউথ এশিয়াটিক স্কুল এন্ড কলেজে ০২ ফেব্র“য়ারি শীতকালীন পিঠা উৎসবের আয়োজন করা হয়।
শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে হরেক রকমের বাহারী পিঠা নিয়ে সাজানো এই পিঠা উৎসব শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের পদচারণায় মূখরিত হয়ে ওঠে। শিক্ষার্থীরা বাসা থেকে এই পিঠা বানিয়ে এনে ক্লাসভিত্তিক নির্ধারিত স্টলে সাজায় এবং তা বিক্রয়ের প্রস্তুতি শেষে অত্র প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইকবাল মহসিন এই পিঠা উৎসব উদ্বোধন করেন। এ সময় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এশিয়াটিক স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মহিউদ্দিন আহমদ, অত্র প্রতিষ্ঠানের কো-অর্ডিনেটর এনামুল হক, পিঠা উৎসবের বিচারক যথাক্রমে শিক্ষিকা জুলিয়া খাতুন ও শিক্ষক সুমন মিয়াসহ সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থী। উদ্বোধনের পরপর অধ্যক্ষ প্রতিটি স্টল থেকে নির্ধারিত দামে পিঠা কিনে নিজে খেয়েছেন এবং উপস্থিত অতিথি ও শিক্ষার্থীদেরকে খাওয়ালেন।
অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইকবাল মহসিন বলেন, শীতকালীন পিঠা একটি বাঙ্গালী ঐতিহ্য। আমাদের শিক্ষার্থীরা এই ঐতিহ্য থেকে দিন দিন বঞ্চিত হচ্ছে। তারা জানে না এই পিঠার স্বাদ, গন্ধ ও খাওয়ার আনন্দ। তাদেরকে আবহমান বাংলার ঐতিহ্যের সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে এই পিঠা উৎসবের আয়োজন। অতিথির বক্তব্যে অধ্যক্ষ মহিউদ্দিন আহমদ বলেন, শিক্ষার্থীর স্বত:স্ফুর্ত অংশগ্রহণ, উৎসাহ ও আনন্দ দেখে সত্যিই মন ভরে গেছে। তিনি এই পিঠা উৎসব আগামীতেও অব্যাহত রাখার জন্য অধ্যক্ষকে অনুরোধ জানান। পিঠা উৎসবে অংশগ্রহণকারী এক অভিভাবক এই উৎসবকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, শিক্ষাকে শিক্ষার্থীদের নিকট আনন্দঘন করে তুলতে এই ধরণের আয়োজন বড় রকমের ভূমিকা রাখে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

x

Check Also

আঞ্জুমানে মোত্তাবেয়ীনে গাউছে মাইজভান্ডারী বৃক্ষ রোপন কর্মসূচী

গাউসুল আজম মাইজভাণ্ডারীর ত্বরীকা ও আদর্শবাহী সংগঠন আঞ্জুমানে মোত্তাবেয়ীনে গাউছে মাইজভান্ডারী কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের ব্যবস্থাপনায় ...