ফেসবুকে ধর্ম নিয়ে আপত্তিকর ছবি, জয়পুরহাটে গ্রেফতার ১

ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম নিয়ে আপত্তিকর ছবি পোস্ট করার কথিত অভিযোগে সুজন কুমার মহন্ত নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনা জয়পুরহাটের পাঁচবিবি পৌর এলাকার।

গত বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাতে পুলিশ সুজনকে গ্রেফতার এবং তার মোবাইল ফোন জব্দ করেছে। পাঁচবিবি থানার এসআই আবু জাফর মো. সালেহ বাদী হয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে সুজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

পাঁচবিবি থানা পুলিশ ও এলাকা সূত্রে জানা গেছে, পাঁচবিবি পৌর এলাকার কাদেরপাড়া মহল্লার সুজন মহন্তের ফেসবুক আইডি থেকে ধর্ম নিয়ে আপত্তিকর একটি ছবি পোস্ট করা হয়। বুধবার রাত সাড়ে আটটার দিকে বিষয়টি জানাজানি হলে প্রতিবাদে ওই মহল্লা থেকে একটি মিছিল বের হয়। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে সুজনকে গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়ে মিছিলকারীদের শান্ত করে।

এ সময় স্থানীয় হিজবুল্লাহ মাদ্রাসায় ফুরফুরা শরিফের একটি মাহফিল চলছিল। মিছিলকারীদের শান্ত করার পর রাত সাড়ে দশটার দিকে পাঁচবিবি বাজার এলাকা থেকে সুজনকে গ্রেফতার করে থানা হেফাজতে নেয় পুলিশ। এ সময় তার কাছে থাকা মোবাইল ফোনও জব্দ করা হয়।

সুজনের বাবা তারাপদ মহন্ত বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, সুজন পানের দোকান দিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে। সে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ালেখা করেছে। কীভাবে এ ঘটনা ঘটল তা কিছুতেই বুঝতে পারছেন না তিনি। তার ধারণা, সরলতার সুযোগ নিয়ে কোনও বন্ধু সুজনের ফেসবুক আইডিতে আপত্তিকর ছবিটি পোস্ট করেছে।

সুজনের স্ত্রী ববি মহন্তও মনে করেন তার স্বামী চক্রান্তের শিকার। এ ব্যাপারে তার কিছুই জানা নেই। পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সুজন দাবি করেছে, তার নামে একটি ফেসবুক আইডি থাকলেও তিনি ওই ছবি পোস্ট করেননি। ফেসবুক সম্পর্কে তার কোনও ধারণা নেই। তার এক বন্ধু শ্রী সুজন নামে ফেসবুক আইডি খুলে দিয়েছে। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করা হচ্ছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। সুজনকে গ্রেফতারের পর বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে জয়পুরহাট কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’

ঘটনা জানাজানির পর বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) সকালে তাদের বাড়িতে আগুন দেওয়ার চেষ্টা চালিয়েছে পাঁচবিবি টিঅ্যান্ডটি পাড়ার কিছু যুবক ও নারী। প্রতিবেশী ও পুলিশ তাদের রক্ষা করেছে। এরপর থেকে তাদের পুরো পরিবার আতঙ্কে রয়েছে। এ কারণে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে সুজনের বাড়ির আশপাশসহ পাঁচবিবি পৌর সদরের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশি পাহারা বসানো হয়েছে।

শিল্পী বেগম ও সমরোজ বেগম নামের দুই প্রতিবেশী নারী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ঘটনার পর সুজনদের বাড়িতে অপরিচিত লোকজন আনাগোনা করছে। আমরা তাদের সাহস জোগাচ্ছি। বাড়ির পাশে পুলিশের একটি টিমও পাহারা দিচ্ছে। তারপরও তারা খুব ভয়ে আছে।’

খবর পেয়ে পুলিশ সুপার রশীদুল হাসান ও সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) অশোক কুমার পাল ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। রাত ১২টার দিকে গ্রেফতারকৃত সুজনের বাড়ির পাশে বালিঘাটা আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সচেতনতামূলক একটি সভার আয়োজন করা হয়। এখানে বক্তব্য রাখেন জয়পুরহাটের পুলিশ সুপার রশীদুল হাসান, পাঁচবিবি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর উদ্দিন আল ফারুক, উপজেলা চেয়ারমান মোস্তাফিজুর রহমান, পাঁচবিবি পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান, স্থানীয় বালিঘাটা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিপ্লব চৌধুরী এবং স্থানীয় মসজিদের ইমাম।

সভায় এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এলাকাবাসীকে আশ্বস্ত করা হয়। সভা শেষে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার জন্য ২০ সদস্যের একটি সম্প্রীতি রক্ষা মনিটরিং কমিটিও গঠন করা হয়। এ কমিটির আহ্বায়ক করা হয় এলাকার প্রবীন রাজনীতিবিদ ও জয়পুরহাট জেলা পরিষদের সদস্য আব্দুল কাদের ব্যাপারীকে।

Check Also

ফেসবুকের সন্ত্রাসবাদ, সহিংসতা ও পর্নো নীতিমালা ফাঁস করেছে ব্রিটিশ পত্রিকা গার্ডিয়ান

বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকের গোপন নিয়ম ও নীতিমালা ফাঁস করেছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম গার্ডিয়ান। …

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply