চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ খ্রি. রবিবার, বিকেলে, চসিক সম্মেলন কক্ষে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বিভাগীয় ও শাখা প্রধানদের সাথে বৈঠক করেন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ খ্রি. রবিবার, বিকেলে, চসিক সম্মেলন কক্ষে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বিভাগীয় ও শাখা প্রধানদের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে মেয়র বিভাগীয় প্রধান ও শাখা প্রধানদের নিকট থেকে ২০১৬-২০১৭ এর অর্থ বছরের বিভিন্ন বিভাগওয়ারী পরিকল্পনা ও তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব প্রসঙ্গে নানা বিষয়ে তথ্য উপাত্ত অবহিত হন। এ সময় মেয়র বলেন, কর্মকর্তা কর্মচারীদের আন্তরিকতা, সততা ও দায়বদ্ধতার উপর নাগরিক সেবার সফলতা নির্ভর করে। তিনি বলেন, শতভাগ সততা নিয়ে সকলকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। মেয়র সকল বিভাগের সাথে সমন্বয় করে কাজ করার বিষয়টি স্মরন করিয়ে বলেন,সকলকে দায়দায়িত্ব নিয়ে একে অপরের সাথে পরামর্শ ও সহযোগিতা নিয়ে সেবা কার্যক্রম গতিশীল করতে হবে। কেউ কাউকে এড়িয়ে চলার সুযোগ নেই। তিনি বলেন, সময় দ্রুত ফুরিয়ে যাচ্ছে। ২০১৬-২০১৭ অর্থ বছরের উন্নয়ন কাজ অনেকটা পিছিয়ে গেছে। আস্থা ও বিশ্বাস অর্জণ করার জন্য দ্রুত উন্নয়ন কাজের টেন্ডার আহবান করতে হবে। মেয়র বলেন, জনগনের নিকট দেয়া ওয়াদা অক্ষরে অক্ষরে পূরণ করতে হবে। এক্ষেত্রে কোন ধরনের ছাড় পাওয়ার সুযোগ নেই। তিনি জাইকা’র উন্নয়ন কর্মকান্ড এবং জাইকা’র নির্দেশনা যথাযথভাবে অনুসরন করার পরামর্শ দেন। কারন তাদের অর্থায়নে নাগরিক সেবা বহুগুন বেড়ে যাচ্ছে। প্রসঙ্গক্রমে মেয়র বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের যাবতীয় কর্মকান্ডে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সকল মন্ত্রণালয় সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। চলতি অর্থ বছরে ফ্যাসেলিটি বিভাগ চসিক পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৭ টি নতুন ভবন এবং ৫টি উর্ধ্বমুখিকরন ভবনের অর্থায়ন করছে। এছাড়াও আরো অসংখ্য ভবন নির্মাণ, উর্ধ্বমুখিকরন ও সংষ্কারে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এই বিষয়ে আরো সহযোগিতার আশ্বাস পাওয়া গেছে। তিনি বলেন, প্রকৌশল বিভাগের উপর চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সুনাম এবং দূর্ণাম নির্ভর করছে। এ বিভাগের সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষে প্রয়োজনীয় সংষ্কার করা হবে। ইতোমধ্যে নিয়োগ,পদায়ন ও পদমর্যাদা বৃদ্ধি করা হয়েছে। তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও নির্বাহী প্রকৌশলীদের আরো বেশি আন্তরিক হতে হবে। মেয়র জাইকার চলমান ব্রিজ নির্মাণ সহ সকল অবকাঠামো উন্নয়ন কর্মসূচি নির্ধারিত সময়ের পূর্বে সমাপ্ত করার উপর জোর দেন। জনপ্রত্যাশা পূরণে সমন্বিত প্রয়াস অব্যাহত রাখতে হবে। বিভাগীয় প্রধানদের বৈঠকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবুল হোসেন, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ড.মুহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান,প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা মিসেস নাজিয়া শিরিন, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্ণেল মহিউদ্দিন আহমদ, নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মিসেস সনজিদা শরমিন, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট যুথিকা সরকার, প্রধান হিসাব রক্ষন কর্মকর্তা মো. সাইফুদ্দিন, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ সফিকুল মন্নান সিদ্দিকী, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম মানিক, মো. মাহফুজুল হক, মনিরুল হুদা, আবু ছালেহ, কামরুল ইসলাম, উপসচিব আশেক রসুল চৌধুরী টিপু, জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম, সহকারী এষ্টেট অফিসার এখলাসুর রহমান সহ বিভিন্ন বিভাগ ও শাখা প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

x

Check Also

চন্দনাইশে স্মরণকালের ইমাম হোসাইন (রা:) কনফারেন্সে বক্তারা আহলে বায়তের প্রতি হিংসা-বিদ্বেষকারীরা আল্লাহর রহমত থেকে বঞ্চিত

বেহেশতী সকল যুবকদের সর্দার হযরত ইমাম হোসাইন (রা:) সহ আহলে বায়তে রাসুল (দ:) সত্য ও ...